খেলার মাঠেজাতীয়রাজনীতিরুপসী বাংলালাইফস্টাইল

মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীর দাফন সম্পন্ন!

দিগন্তর প্রতিবেদন : হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির হাফেজ মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। হাটহাজারী মাদরাসায় বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) রাত পৌনে ১২টার দিকে তার মরদেহ দাফন করা হয়।

হেফাজতের চট্টগ্রাম মহানগরের সাবেক দফতর সম্পাদক আল্লামা মোহাম্মদ ইকবাল বিষয়টি নিশ্চত করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে হাটহাজারীর ডাক বাংলোর সামনে জুনায়েদ বাবুনগরীর জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইমামতি করেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর মামা ও হেফাজতের বর্তমান আমীর আল্লামা মহিবুল্লাহ বাবুনগরী।

বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৯টার দিকে হাটহাজারী মাদরাসায় বাবুনগরীর মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্সটি নিয়ে আসা হয়। এর আগে মরদেহ তার গ্রামের বাড়ি ফটিকছড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। সেখানে পরিবারের সদস্যদের দেখিয়ে রাতে হাটহাজারী মাদরাসায় নিয়ে আসা হয়েছে।

এর আগে বাবুনগরীর লাশ তার গ্রামের বাড়িতে নেয়া হয় পরিবার এবং গ্রামবাসীকে শেষ বারের মতো দেখতে দেয়ার জন্য।

বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) হেফাজতের নায়েবে আমির সালাউদ্দিন নানুপুরী জানান, হেজাফতে ইসলামের আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর দাফন চট্টগ্রামের মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার কবরস্থানে হবে। রাত ১১ টায় মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে জানাজা শেষে তাকে সেখানে দাফন করা হবে।

এর আগে, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী চট্টগ্রাম নগরীর সিএসসিআর হাসপাতালে বেলা ১২টা ৩০ মিনিটে মৃত ঘোষণা করে চিকিৎসকরা।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাটহাজারি মাদরাসায় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এসময় দ্রুত অক্সিজেন লাগিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে করে জরুরি চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামের একটি হাসপাতালে নেয়া হয় তাকে। পরে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে।

বাবুনগরীর খাদেম মাওলানা জুনায়েদ জানিয়েছেন, বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে বাবুনগরীর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়। পরে তড়িঘড়ি করে অ্যাম্বুলেন্স ডেকে তাকে নিয়ে হাসপাতালের দিকে রওনা হন সঙ্গীরা।

0Shares

Comment here