অর্থনীতিখেলার মাঠেজাতীয়ধর্মকর্মপ্রযুক্তিরুপসী বাংলাশিক্ষাঙ্গনসীমানা পেরিয়েস্বাস্থ্যপাতা

খুলনায় পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ২০ টাকা

খুলনা প্রতিনিধি | দিগন্তর | পর্যাপ্ত মজুত থাকার পরও খুলনায় ভারতীয় পেঁয়াজ না আসার অজুহাতে কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে আবারও বাড়ানো হয়েছে পেঁয়াজের দাম। গত কয়েকদিন ধরে এ পণ্যটির মূল্য হু হু করে বেড়ে চলেছে।

এক সপ্তাহ আগের ৪০ টাকার পেঁয়াজ এখন খুচরা বাজারে ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। গতকাল (বুধবার) পাইকারি বাজারে এর দাম ছিল ৫০ টাকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, এ বছর খুলনা অঞ্চলে দেশি পেঁয়াজের ফলন ভালো হয়েছে। দোকানিদের কাছেও রয়েছে প্রচুর পেঁয়াজ। কিন্তু তারপরও দাম বৃদ্ধি করছে একটি অসাধু সিন্ডিকেট। যাদের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছেন অসহায় ক্রেতারা।

 

নগরীর সোনাডাঙ্গা কেসিসি’র পাইকারি কাঁচাবাজারের নিউ ফারাজী ভান্ডারের মালিক জানান, কয়েকদিন ধরে পেঁয়াজের বাজার ওঠানামা করছে। গত মঙ্গলবার এ বাজার থেকে ৪২-৪৩ টাকা দরে পাইকারিতে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে। অথচ আজ তাকে ৪৮-৫০ টাকা দরে বিক্রি করতে হচ্ছে।

এ বাজারের মেসার্স বাণিজ্য ভান্ডারের মালিক মো. মালেক জানান, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে গত দেড় মাস। এরপরও দামে তেমন প্রভাব পড়েনি। দেশে এবার পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষকরা নিত্যপ্রয়োজনীয় এ পণ্যটি গুদামজাত করে রাখছে। এ কারণে মোকামগুলোতে তেমন পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে না। যা পাওয়া যায় তা দেশের সর্বত্র ভাগবাটোয়ারা হয়ে যাচ্ছে। গত তিনদিন আগে বাজারে পেঁয়াজের ঘাটতি দেখা দিয়েছিল। এজন্য দাম চড়া ছিল।

নগরীর টুটপাড়া কাঁচাবাজারের ব্যবসায়ী শাহিন জানান, তিনদিন বাজার চড়া। ট্রাক টার্মিনাল থেকে তাকে চড়া দরে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে। তার দোকানে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এই বাজারের অপর ব্যবসায়ী গণেষ দাস জানান, পেঁয়াজ কিনতে এখন ভয় করছে, দাম বাড়ছে বলে ক্রেতার সংখ্যা কমে গেছে। বেশি দামে পেঁয়াজ কিনে ধরা না খাই!

নগরীর মিয়াপাড়া এলাকার গৃহিনী রোকসানা মনোয়ার বলেন, এ বছর পেঁয়াজের বাম্পার ফলন হয়েছে, বাজারে সরবরাহ পরিস্থিতিও ভালো। তারপরও দাম বৃদ্ধির কারণে তিনি হতাশ। ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ গুদামজাত করে বাজারকে অস্থির করতে চায় বলে তার অভিযোগ।

0Shares

Comment here