অর্থনীতিখেলার মাঠেজাতীয়ধর্মকর্মপ্রযুক্তিরুপসী বাংলালাইফস্টাইলশিক্ষাঙ্গনসীমানা পেরিয়েস্বাস্থ্যপাতা

দিনাজপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ছোট ভাইকে হত্যার অভিযোগ 

মোঃ মিজানুর রহমান | রংপুর ব্যুরো | দিনাজপুর জেলাধীন চিরিরবন্দরে আমগাছে গলায় রশি লাগানো ঝুলন্ত ইয়াকুব আলী (৫০) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে চিরিরবন্দর থানা পুলিশ।
মঙ্গলবার (১ জুন) রাত ১০ টার দিকে চিরিরবন্দর উপজেলার ৩নং ফতেজংপুর ইউনিয়নের উত্তর পলাশবাড়ী গ্রামের ঠাকুরের হাট এলাকার মাওলানা পাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত ইয়াকুব আলী উপজেলার একই গ্রামের মৃত্যু মোহাম্মদ আলীর ছেলে।
এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, বুধবার (২ জুন) সকালে নিহতের আপন বড় ভাই জাবেদ আলী’র (৫৫) বাড়ির পাশে আমগাছে গলায় রশি লাগানো ঝুলন্ত অবস্থায় তারা ইয়াকুব আলী’র লাশ দেখতে পায়। পরবর্তীতে স্থানীয়রা বিষয়টি চিরিরবন্দর থানাকে অবহিত করলে, পুলিশ লাশটি  উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে আসে।
এলাকাবাসীগণ আরো জানায়, জমি ভাগ-বন্টন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে নিহতের বড় ভাই জাবেদ আলী’র সাথে ইয়াকুব আলী’র ঝগড়া-বিবাদ চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ইয়াকুব আলী’কে হত্যা করা হতে পারে।
নিহতের স্ত্রী আর্জিনা বেগম জানায়, আমার ভাসুর জাবেদ আলী’র সাথে জমি ভাগ-বন্টন নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ঝগড়া-বিবাদ চলছিল। এরই মধ্যে জাবেদ আলী ও তার জামাতা মিলে আমার স্বামী ইয়াকুব আলী’কে বেশ কয়েকবার পিটিয়ে আহত করে। এ ব্যাপারে চিরিরবন্দর থানায় একটা মামলা দায়ের করা হয়েছিল।
তিনি আরো জানান, মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১০ টার দিকে নিজ বাড়ীতে আসার পথে রাস্তায় জাবেদ আলীসহ অন্যান্য দুর্বৃত্তরা মিলে আমার স্বামী ইয়াকুব আলীকে আটক করে। পরে তারা আমার স্বামীকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে তাদেরই বাড়ীর সামনে ছোট্ট একটি আম গাছের সাথে লাশ ঝুলিয়ে রাখে। আমি আমার স্বামী হত্যায় জড়িত অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।
চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার মৃত্যুদেহ উদ্ধারের সংবাদ নিশ্চিত করে বলেন , স্থানীয় ব্যক্তিদের সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করেছে।
পরবর্তীতে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এব্যাপারে চিরিরবন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হবে বলেও তিনি নিশ্চিত করেছেন।।
0Shares

Comment here