জাতীয়বিনোদনরকমারিরুপসী বাংলাস্বাস্থ্যপাতা

খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার আবেদন, যাচাই বাছাইয়ের পর সিদ্ধান্ত

স্টাফ রিপোর্টার ||সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিতে লিখিতভাবে সরকারের কাছে আবেদন করেছে তার পরিবার।

এই আবেদন নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসনের ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ধানমণ্ডির বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করেন।

খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিতে তার পরিবারের আবেদন আইন মন্ত্রণালয় গ্রহণ করেছে। যাচাই বাছাইয়ের পর খালেদার বিষয়ে সিদ্ধান্ত মন্ত্রণালয় জানাবে।

আবেদনের বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার আবেদনসংক্রান্ত ফাইলটি বুধবার (৫ মে) রাত ১১টায় আইন মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের সচিবের কাছে এসেছে। এখন যথাযথ প্রক্রিয়া শেষ করে সেটি তাঁর (মন্ত্রী) কাছে আসবে। তারপর সেটি দেখে এ বিষয়ে মতামত দেবেন। তবে এখনো তাঁর হাতে ফাইলটি আসেনি।

উল্লেখ্য, ৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর এখন ঢাকার এভার কেয়ার হাসপাতালে সিসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ড নিয়ে তিন বছর আগে কারাগারে যাওয়ার পর গত বছর করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটলে সরকার দণ্ডের কার্যকারিতা স্থগিত করে তাকে মুক্তি দেয়। তখনও পরিবারের আবেদনে খালেদা জিয়াকে দেশেই চিকিৎসা নেওয়ার শর্তে মুক্তি দেয়া হয়েছিল।

গত বছরের ২৫ মার্চ ছাড়া পাওয়ার পর তিনি গুলশানে তার বাসায়ই ছিলেন। সেখানেই কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হন তিনি। ১১ এপ্রিল করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়লেও তার লক্ষণ-উপসর্গ ছিল না বলে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল।

এরপর ২৭ এপ্রিল রাতে পরীক্ষার জন্য বসুন্ধরায় এভার কেয়ার হাসপাতালে নিলে সেখানে তাকে ভর্তি করা হয়। শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে গত সোমবার তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) নেওয়া হয়। তার অবস্থা অপরিবর্তিত বলে গেলো মঙ্গলবার সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও বিএনপি নেতা অধ্যাপক ডা. এ জে এম জাহিদ হোসেন।

0Shares

Comment here