জাতীয়রকমারিরাজনীতিশিক্ষাঙ্গনসীমানা পেরিয়ে

লকডাউনের মেয়াদ বাড়লো, ঈদে বন্ধ দূরপাল্লার বাহন

আফজাল আহমেদ || করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান লকডাউনের মেয়াদ আগামী ১৬ মে পর্যন্ত বাড়িয়েছে সরকার। এসময় জেলার মধ্যে গণপরিবহন চললেও দূরপাল্লার পরিবহন, ট্রেন ও লঞ্চ আগের মতই বন্ধ থাকবে।

সোমবার (৩ মে) মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার সিদ্ধান্ত জানানোর সময় লকডাউনের মেয়াদ বাড়ার এই খবর সাংবাদিকদের জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, যদি মাস্ক না পরে তাহলে কঠোর অ্যাকশনে যাচ্ছি। আজ থেকে পুলিশ ও ‍সিটি কর্পোরেশন এবং প্রশাসন দেশের প্রত্যেকটি মার্কেটগুলোতে সুপারভাইস করবে। যদি কোন মার্কেটে বেশি লোক হয় তা কন্টোল করা যাবে না তবে মাস্ক ছাড়া যদি বেশি লোকজন ঘোরাফেরা করে তাহলে প্রয়োজনে সেসব মার্কেট বন্ধ করে দেব।দোকান মালিক সমিতি এ বিষয়ে সহযোগিতা করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আজ সিদ্ধান্ত হয়েছে লকডাউন যেটা আছে, ঈদ তো ১৪ তারিখ, ১৬ মে পর্যন্ত এভাবে কনটিনিউ করবে আর গণপরিবহন ইউথইন দা ডিস্ট্রিক চলাচফেরা করতে পারবে, ৬ মে থেকে চলবে। এক জেলার বাস আরেক জেলায় চলবে না। লঞ্চ ও ট্রেন বন্ধ থাকবে।

ঈদে মানুষ বাড়ি ফেরায় ভোগান্তি বাড়বে কিনা প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ঈদে সরকারি ছুটি তো তিনদিন, এর মধ্যে দুইদিন পড়ছে শুক্র ও শনিবার। তিনদিনের বাইরে কোন ছুটি দেওয়া হবে না।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রোধে কঠোর বিধিনিষেধের দ্বিতীয় ধাপে ১৪ এপ্রিল থেকে দেশে জরুরি কাজ ছাড়া ঘরের বাইরে বের হওয়ার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। এই বিধিনিষেধের মধ্যে জরুরি সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠান ছাড়া সরকারি-বেসরকারি অফিস ও গণপরিবহন আগের মতই বন্ধ আছে। তবে উৎপাদনমুখী শিল্প কারখানা স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ চালাতে পারবে।

শুরুতে লকডাউনে শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশনা থাকলেও ‘জীবন-জীবিকার কথা বিবেচনা করে’ গত ২৫ এপ্রিল থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান ও শপিংমল খোলার অনুমতি দেওয়া হয়।

লকডাউনের মধ্যে ব্যাংকে লেনদেন করা যাচ্ছে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত। সতর্কতার অংশ হিসেবে সীমিত জনবল দিয়ে বিভিন্ন শাখা চালু রেখেছে ব্যাংকগুলো।

0Shares

Comment here