প্রযুক্তিরকমারিরাজনীতিলাইফস্টাইলশিক্ষাঙ্গনসীমানা পেরিয়ে

দোকান-শপিংমল খোলা: ঢাকায় ফিরছেন অনেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক || করোনা সংক্রমণ রোধে সারাদেশে লকডাউন চলছে। তবে এই সময়ে মানুষের জীবিকার বিষয় বিবেচনা করে ২৫ এপ্রিল থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকানপাট ও শপিংমল খোলা রাখার অনুমতি দিয়েছে সরকার। এ খবর পাওয়ার পর দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ঢাকায় আসতে শুরু করেছেন নগরবাসী।

শনিবার (২৪ এপ্রিল) সকাল থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম সড়কে গাড়ির চাপ লক্ষ‌্য করা গেছে। গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকলেও অনেকে মোটারসাইকে, প্রাইভেটকার, পিকআপে করে ঢাকায় ফিরছেন।

যাত্রাবাড়ী বাস স্ট্যান্ড থেকে মো. আকতার হোসেন নামে এক ব্যক্তি বলেন, ‘লকডাউনে মুন্সিগঞ্জে গ্রামের বাড়িতে গিয়েছিলাম। গুলিস্তান ট্রেড সেন্ট্রারে একটি দোকানে আছে। সরকার দোকান খোলার অনুমতি দিয়েছে। তাই আবার ঢাকায় ফিরে এলাম। তবে বাস না চলায় আসতে কষ্ট হয়েছে। ১০০ টাকার ভাড়া ৪০০ টাকা দিয়ে ঢাকা আসলাম।

শনিরআখড়া থেকে পরিবহন শ্রমিক ইয়ার হোসেন বলেন, ‘ঘরে, চাল-ডাল যা ছিল শেষ। রাস্তায় বের হলাম। যদি কোনো কাজ পাই। বাসের মালিককেও টাকার জন্য ফোন দিয়েছি। সে যদি কিছু টাকা দিতো তাহলে বাজার নিয়ে বাসায় যেতাম।

রায়েরবাগ চেকপোস্ট থেকে আবুল কাশেম নামে একজন বলেন, ‘আমি একটি টেলিভিশন অফিসে কাজ করি। পুলিশকে আইডি কার্ড দেখানোর পর যেতে দিয়েছে। তবে ভাড়া বেড়েছে কয়েকগুণ। আগে সিএনজিতে রায়েরবাগ থেকে গুলিস্তানে ২০ টাকায় যেতাম এখন ২৭০ টাকা ভাড়া দিতে হচ্ছে।

রায়েরবাগ চেকপোস্টে দায়িত্বরত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উপপরিদর্শক (এসআই) নিয়াজ হোসেন বলেন, ‘মুভমেন্ট পাস, জরুরি সেবা ছাড়াও বিভিন্ন অজুহাতে মানুষ রাস্তায় বের হচ্ছে। অনেকে বিনা কারণে রাস্তায় ঘোরাফেরা করছে। অনেকের কোনো কাজ নেই, তারপরও ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে বাইরে ঘুরছেন। কাজ ছাড়া যারা বাসা থেকে বের হচ্ছেন, তাদের বুঝিয়ে বাসায় ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

0Shares

Comment here