ধর্মকর্মপ্রযুক্তিবিনোদনরকমারিলাইফস্টাইলশিক্ষাঙ্গনসীমানা পেরিয়ে

বরগুনায় সাংবাদিক হয়ে অন্য সাংবাদিককে খেয়ে ফেলার হুমকি

বরগুনা জেলা প্রতিনিধ :বরগুনার পাথরঘাটার একটি এতিমখানায় দৈনিক আজকের আলোকিত সকাল ডটকম নামে একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের বিশেষ প্রতিনিধি পরিচয় দানকারী  রাহিমা আক্তার মুক্তার দাবি কৃত চাঁদা দিতে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকে নিষেধ করায়, সাংবাদিক কাজী রাকিবকে হত্যার ও খেয়ে ফেলার হুমকি দিয়েছেন উক্ত নারী সাংবাদিক মুক্তা।

শুধু তাই নয় ওই অনলাইনে উল্টো কাজী রাকিবের বিরুদ্ধে হলুদ সাংবাদিক আক্ষা নিয়ে সংবাদ পরিবেশন করেছেন বলে জানাগেছে। প্রতিনিধির পরিচয়দানকারী রাহিমা আক্তার মুক্তা পাথরঘাটা উপজেলার নাচনাপাড়া ইউনিয়নের বশিরুল ইসলাম বাদলের মেয়ে।

এবিষয়ে দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার পাথরঘাটা উপজেলা প্রতিনিধি ও অনলাইন নিউজপোর্টাল পাথরঘাটা নিউজ ডটকমের নির্বাহী সম্পাদক তারিকুল ইসলাম কাজী রাকিব পাথরঘাটা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এছাড়াও নাচনাপাড়া পুটিমারা হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল হক লাল মিয়া রাহিমা আক্তার মুক্তাসহ আরও ৩ জনের নাম উল্লেখ করে করোনাকালে কেন মাদ্রাসা বন্ধ রাখা হয়েছে এমনটি বলে হুমকি ও চাঁদা দাবি করার বিষয় উল্লেখ করে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশে পাথরঘাটা থানায় অপর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

নাচনাপাড়া পুটিমারা হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার ব্যবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল হক লাল মিয়া জানান, রোববার বেলা ১০টার দিকে রাহিমা আক্তার মুক্তা, মো. মামুন ও মো. তানভীর দৈনিক আজকের আলোকিত সকাল ডটকমের বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে পরিচয় দিয়ে আমাদের কাছে মাদ্রাসার তথ্য উপাত্ত চায়। এ সময় পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অনুমতি নিয়ে তদন্তে এসেছেন বলেও দাবি করেন তারা। তার এক পর্যায় করোনাকালে মাদ্রাসার ক্লাস বন্ধ রাখা হয়েছে কেন? আপনাদের মাদ্রাসা একেবারে বন্ধ করে দেয়া হবে এই কথা বলার পরেই মোটা অংকের টাকা দাবি করেন। আমরা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানাই। এক পর্যায় আমরা পাথরঘাটাস্থ সাংবাদিক কাজী রাকিবকে মোবাইল ফোনে জানালে তিনি ওই সাংবাদিকদের দাবি করা চাঁদা দিতে নিষেধ করে। পরে আমরা টাকা না দিলে উল্টো আমাদের মাদ্রাসা বন্ধ করে দেয়া হবে এবং সাংবাদিক কাজী রাকিবকে হত্যা ও দেখে নেয়ার হুমকি দেয়।

এদিকে সাংবাদিক কাজী রাকিব জানান, রাহিমা আক্তার মুক্তা নামে একজন সাংবাদিক পুটিমারা মাদ্রাসায় গিয়ে মোটা অংকের টাকা দাবি করে,  মোবাইলে ওই মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ আমাকে জানালে আমি চাঁদার টাকা দিতে নিষেধ করি। এ কারণে আমাকে মুক্তা নামের ওই সাংবাদিক আমাদের সহকর্মী আরিফের মুঠোফোনে হত্যার হুমকি দিয়েছে এবং আমাকে খেয়ে ফেলবে বলেও উল্লেখ করেন।

যা অডিও রেকর্ড ইতোমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এছাড়াও পাথরঘাটা নিউজডটকম বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেয় মুক্তা।

 

এ বিষয় আমার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে পাথরঘাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি, থানা এখন পর্যন্ত আমলে নেয়নি। ইতোমধ্যেই দৈনিক আজকের আলোকিত সকাল ডটকমে আমাকে নিয়ে মিথ্যা নিউজ প্রকাশ হয়েছে।

এ বিষয়ে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবরিনা সুলতানা জানান, আমার কাছে মুক্তা নামে একটি মেয়ে এসেছিল মাদ্রাসা তদন্তের অনুমতি নেয়ার জন্য। তাদেরকে আমি অনুমতি দেইনি বরং এ বিষয়ে তাদের অনুসন্ধান করতে নিষেধ করেছি। যেহেতু তাঁরা আমার নিষেধ অমান্য করে ওই প্রতিষ্ঠানকে হয়রানি করেছে। সে ক্ষেত্রে আমি পাথরঘাটা থানার ওসিকে বলেছি কোন অভিযোগ আসলে তাৎক্ষণিকভাবে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার।

পাথরঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহাবুদ্দিন বলেন, আমি সাংবাদিক কাজী রাকিব, সহ আরো দুজনের অভিযোগ পত্র পেয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

 

0Shares

Comment here