জাতীয়লাইফস্টাইলশিক্ষাঙ্গনসীমানা পেরিয়ে

জয়পুরহাটে ছয়টি পরিবারের ১০টি ঘর আগুনে পুড়ে ছাই

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি : জয়পুরহাটে পৌর শহরের বুলুপাড়া এলাকায় আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে ছয়টি পরিবারের রান্নাঘরসহ প্রায় ১০টি ঘর। সোমবার (২২ মার্চ) বিকেলে এ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলে আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ১ ঘন্টার চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

জয়পুরহাট ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারি পরিচালক ছানাউল হক আগুনে পুড়ে যাওয়া ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে দৈনিক দিগন্তরকে বলেন, এ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ২ টি গরু, ২ টি ছাগল ও তাদের দেয়া তথ্য মতে ঘরে থাকা ৩০ হাজার টাকা পুড়ে ছাই হয়েছে। এ ছাড়া ঘরের যাবতীয় মালামাল বিশেষ করে কাঠের আসবাবপত্র, চাল ডাল, কাপড় চোপড়, নগদ অর্থ ও জমির দলিল পত্রসহ অন্যান্য জিনিস পত্র পুড়ে ছাই হয়েছে।প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটতে পারে।

আগুন লাগার খবর পেয়ে তৎক্ষনিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জয়পুরহাট পৌরসভার নব-নির্বাচিত মেয়র মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক।

পরে তিনি নিজস্ব তহবিল থেকে তাৎক্ষনিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ছয়টি পরিবারের হাতে নগদ ৫ হাজার টাকা করে মোট ৩০ হাজার টাকা ও ৩০ টি কম্বল তুলে দেন।

এছাড়াও ওয়ার্ডের নব-নির্বাচিত কাউন্সিলর ওলিউজ্জামান বাপ্পী ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে শাড়ি, লুঙ্গিসহ প্রয়োজনীয় কাপড়-চোপড় কিনে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

এদিকে জয়পুরহাট জেলা প্রশাসক শরীফুল ইসলাম ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন চন্দ্র রায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহযোগীতা করেন।

প্রশাসনিক সহযোগীতার বিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন চন্দ্র রায় দিগন্তরকে বলেন,জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের মাঝে ২ বান্ডিল করে টিন ও পুড়ো যাওয়া ঘর মেরামত করার জন্য নগদ ৬ হাজার করে টাকা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও আগামীকাল ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেক পরিবারকে ৩০ কেজি করে চাল ডাল দিয়ে সহযোগীতা করা হবে।

আমাদের প্রতিনিধি ঘটনাস্থলে পৌঁছে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বললে তারা জানান,এ ভয়াবহ আগুনে আমাদের ঘরে থাকা কোন কিছুই রক্ষা পায়নি সমস্তকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বিকেলে আমাদেরকে পৌর মেয়র ও জেলা প্রশাসন নগদ অর্থ দিয়ে সহযোগীতা করেছেন এবং পরে আরো সহযোগীতা করবেন বলেও তারা আশ্বাস দিয়েছেন।

0Shares

Comment here