জাতীয়শিক্ষাঙ্গনসীমানা পেরিয়ে

তালতলীতে সাংবাদিক পরিবারকে অবরুদ্ধ ও প্রাননাশের হুমকি

এস এম আবুল হাসান, নিজস্ব প্রতিনিধি : বরগুনার তালতলীতে পুর্ব শত্রুতার জের ধরে সাংবাদিক পরিবারকে একঘরে করে বেড়া দিয়ে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ৩নং কড়ইবারিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের পূর্ব ঝাড়াখালী গ্রামের মৃত্যু নূর আলী হাওলাদারের ছেলে অহিদুল ও তার প্রভাবশালী সংগীদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিন গিয়ে জানা যায়,গত বুধবার (১৩ জানুয়ারি ২০২১) খলিল ও অহিদুলের সাথে মাছ ক্রয়-বিক্রয়ের ক্ষুদ্র ঘটনাকে কেন্দ্র করে তর্কের সৃষ্টি হয়। পরবর্তীতে খলিলের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকার সেলিম হাওলাদারের (৪৫) বাড়িতে ডেকে নিয়ে, অহিদুল, মোসলেম এবং মাসুদ এ ৩ ব্যক্তি মিলে খলিলের উপর অমানবিক নির্যাতন চালায়।

মারধরের একপর্যায়ে গলায় গামছা পেচিয়ে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা চালালে আসপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। পরক্ষণে তালতলী থানায় অভিযোগ জানালে, পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ঘটনার সত্যতা পেয়েও খলিলকে আপোশ মীমাংসার আপত্তি জানিয়ে মীমাংসার ব্যবস্থা করেন।

এর কিছু দিন না ফুরাতেই “খলিলকে প্রাননাশের হুমকি দেয় এলাকার ক্ষমতাসীন অহিদুল ও তার পরিবার। খলিল এবং সাংবাদিক ইব্রাহিম সুমন আপন ভাই বিধায় তার বাড়িটিকেও বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে আটকে দিয়েছেন অহিদুল। বেড়ার আসপাসে ঘেশলে তাকেও খুন করবে বলে প্রাননাশের হুমকি দেয়া হয়।

এবিষয়ে ইব্রাহিম সুমন জানায়, আমার ভাইয়ের সাথে তাদের শত্রুতা থাকায় তারা আমার বাড়িতে বেড়া দিয়ে যাতায়াতের পথ বন্ধ করে দিয়েছে। আমার পরিবারের কেউ বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না। তারা লাঠি ছোটা নিয়ে বসে থাকে। সুযোগ পেলে আমাদেরকে আঘাত করবে। আমার জীবন এখন ঝুঁকি পূর্ণ।

এবিষয়ে অহিদুলের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি, সাংবাদিকদের সকল প্রশ্নের জবাব এরিয়ে যান।

এবিষয়ে উক্ত ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ ইউনুস গাজী জানায়, অহিদুল আমার আত্মীয়, যার কারনে আমি বারবার নিষেধ করেও মানাতে পারছিনা। তারা এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে মানে না। যে কোনো মুহুর্তে এদের মধ্যে বড় ধরনের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে যেতে পারে বলে জানাগেছে।

0Shares

Comment here