জাতীয়লাইফস্টাইলসীমানা পেরিয়ে

পঞ্চম দিনে টিকা নিলেন ২ লাখেরও বেশি মানুষ

এম এ জাহান ||প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগের পঞ্চম দিনে দেশের মোট ১ হাজার পাঁচটি কেন্দ্রে টিকা নিয়েছেন ২ লাখ ৪ হাজার ৫৪০ জন।

এর আগে জাতীয়ভাবে করোনাভাইরাসের টিকা নেওয়ার চতুর্থ দিনে বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সারাদেশে টিকা নিয়েছেন ১ লাখ ৫৮ হাজার ৪৫১ জন।

বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে, রোববার টিকাদান কার্যক্রম শুরুর প্রথম দিন সারাদেশে টিকা নেন ৩১ হাজার ১৬০ জন। এরপর সংখ্যাটা দ্রুত বাড়তে থাকে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগরে টিকা নিয়েছেন ২৪ হাজার ৪৫৩ জন। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৬ হাজার ৪২৪ জন এবং নারী ৮ হাজার ২৯ জন।

ঢাকা মহানগরীসহ ঢাকা বিভাগে টিকা নিয়েছেন ৫১ হাজার ১৫৯ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৯ হাজার ৩৩৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৫২ হাজার ৮৬৯ জন, রাজশাহী বিভাগে ২৩ হাজার ১৮০ জন, রংপুর বিভাগে ১৯ হাজার ৩৮০ জন, খুলনা বিভাগে ২৩ হাজার ৪৭৯ জন, বরিশাল বিভাগে ৯ হাজার ৩৯৭ জন এবং সিলেট বিভাগে টিকা নিয়েছেন ১৫ হাজার ৭৩৯ জন।

টিকা গ্রহণকারী ৮৬ জনের সামান্য (জ্বর, টিকা নেওয়ার স্থানে লাল হওয়া) পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

গত ২৭ জানুয়ারি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর ভার্চ্যুয়াল উপস্থিতিতে পাঁচজনকে টিকা দেওয়া হয়। পরে ৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হয় জাতীয়ভাবে টিকাদান কার্যক্রম।

রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালসহ সারা দেশের এক হাজার পাঁচটি হাসপাতালে কোভিড-১৯ টিকা দেয়া হচ্ছে। টিকাদানের প্রথম দিন মোট ৩১ হাজার ১৬০ জনকে টিকা দেয়া হয় বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছিল।

বর্তমানে বাংলাদেশে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার ৭০ লাখ ডোজ রয়েছে এবং করোনার টিকা নিতে চাইলে www.surokkha.gov.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে নিবন্ধন করতে হবে।

ভারতের উপহার হিসেবে সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড টিকার ২০ লাখ ডোজ গত ২১ জানুয়ারি বাংলাদেশে এসে পৌঁছে। এরপর ২৫ জানুয়ারি সেরাম থেকে বাংলাদেশের ক্রয় করা কোভিশিল্ডের প্রথম চালানের ৫০ লাখ ডোজ নিরাপদে ঢাকায় আসে।

0Shares

Comment here