খেলার মাঠেজাতীয়ধর্মকর্মলাইফস্টাইলসীমানা পেরিয়ে

খুলনায় নতুন করে ৪০ জন মাদক কারবারি নাম অন্তর্ভূক্ত

খুলনা প্রতিনিধি || খুলনার মাদক কারবারির তালিকায় নতুন করে যুক্ত হয়েছেন আরও ৪০ জন। এর আগে ছিল ৩০ জন।

সবমিলিয়ে জানুয়ারিতে তৈরি নতুন তালিকায় জেলা ও মহানগরীতে তালিকাভূক্ত মাদক বিক্রেতার সংখ্যা ৭০ জনে দাঁড়িয়েছে।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর খুলনার গোয়েন্দা শাখার ইন্সপেক্টর পারভীন আক্তার এ তথ‌্যের সত‌্যতা স্বীকার করেছেন।

নগর ও জেলায় প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ীর সংখ্যা আরও বেশি বলে অপরাপর সূত্রগুলো জানিয়েছে।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর থেকে জানা যায়, খুলনা মহানগরী ও পার্শ্ববর্তী উপজেলাগুলোতে মাদক বিস্তার লাভ করেছে। আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে মাদকসেবীর সংখ্যা। গত পাঁচ বছরে জেলায় সাত হাজারেরও বেশি তরুণ-তরুণী মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে। নারী মাদকাসক্তের সংখ্যা প্রায় ১ হাজার। নারীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক হচ্ছে শিক্ষার্থী। ফেনসিডিল, ইয়াবা, গাজা, বিক্রি হচ্ছে নগর ও জেলার বিভিন্ন এলাকায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, নতুন বছরের শুরুতেই খুলনার মাদক ব্যবসায়ীদের তালিকা হালনাগাদ করা হয়। এ তালিকায় নতুন করে ৪০ জনের নাম অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। এর মধ্যে নগরীর বিভিন্ন থানা এলাকায় ২৬ জন এবং জেলার কয়েকটি উপজেলায় রয়েছে ১৪ জন।

নতুন তালিকায় থাকা মাদক কারবারিরা হচ্ছেন— নগরীর টিবি ক্রস রোডের আব্দুল লতিফের ছেলে আসাদুজ্জামান হিরা, খালিশপুর হাউজিং এস্টেটের মো. মুনসুর শেখের ছেলে মো. ইমরান, দোলখোলা ইসলামপুর রোডের হারুনুর রশীদের ছেলে রফিকুল ইসলাম বাবলু, খালিশপুর নিউমার্কেট এলাকার মো. ইমরান চৌধুরীর স্ত্রী শারমিন আক্তার মুনা, রেলিগেট রেল লাইনের পাশে মতি হাওলাদারের স্ত্রী ময়না, নয়াবাটি বাহাউদ্দিনের ছেলে মো. সাগর, গোবরচাকা গাবতলা মোড়ের সাগর আলী শেখের ছেলে ইব্রাহীম শেখ, টুটপাড়া তালতলা হাসপাতাল রোডের হারুন মল্লিকের ছেলে আল আমিন মল্লিক, টুটপাড়া মাস্টার পাড়ার হাবিবুর রহমানের ছেলে মো. আমিনুল ইসলাম, খালিশপুরের আলমনগর রেলিং মিল এলাকার দেলোয়ার হোসেন মোল্লার ছেলে পিন্টু মোল্লা, বানরগাতি মেটোপোল এলাকার আব্দুর রাজ্জাক শরীফের ছেলে মো. রেজাউল কবির শরীফ, ক্রিসেন্ট রেল লাইনের পশ্চিম পাশের পলাশ হাওলাদারের ছেলে সুমন হাওলাদার, শিপইয়ার্ড মতিয়াখালী ৩য় গলির হাসমত আলীর ছেলে মো. সাহেব আলী, টুটপাড়া সরকার পাড়া লেনের শাহ আলম হাওলাদারের ছেলে মনির হোসেন হাওলাদার, বকসিপাড়া মেইন রোডের রামপদ সরকারের ছেলে কালীপদ সরকার তপন, তালতলা এলাকার আসাদুজ্জামান চৌধুরীর ছেলে পরাগ চৌধুরী, সোনাডাঙ্গা ১ম ফেজের মফিজুর রহমানের ছেলে আরিফ হোসেন, কবি নজরুল রোডের আতিয়ার শেখের ছেলে সাগর শেখ, ফারাজীপাড়ার আক্তার হোসেনের ছেলে শাহজাহান কবির মিঠু, উত্তর কাশিপুরের মনিরুল ইসলাম লেদুর স্ত্রী পারভীন বেগম, টুটপাড়া দারোগা পাড়ার মো. জাকিরের ছেলে মো. কাজল, মৌলভী দরগা রোডের ফেরদাউসের স্ত্রী হিরা, আলমনগর রোলিং মিল এলাকার দেলোয়ার হোসেন মোল্লার ছেলে মো. স্বপন রহমতুল্লাহ, রূপসা ষ্ট্যান্ড রোডের কামাল উদ্দিন মৃধার ছেলে শাহাজান মৃধা, মাস্টারপাড়ার নুরুজ্জামানের ছেলে ইকবাল হোসেন এবং ছোট মির্জাপুর এলাকার নওশের আলী গাজীর ছেলে ফিরোজ পারভেজ।

অপরদিকে, জেলার তেরখাদা উপজেলার শেখপুরা মধ্যপাড়ার বাদশা শেখের ছেলে মো. আশিক শেখ, বটিয়াঘাটা উপজেলার শৈলমারী গ্রামের শামসুল হক হাওলাদারের ছেলে জামাল হাওলাদার ওরফে জিরা জামাল, দিঘলিয়া উপজেলার দেয়াড়া পূর্বপাড়ার মোজাফ্ফার মীরের ছেলে রফিক মীর, দাকোপ উপজেলার আচাভুয়া গ্রামের মধু শিকদারের ছেলে আলম শিকদার, চালনা বৌমার বটতলা এলাকার অভিমূন্য বিশ্বাসের ছেলে বিশ্বজিত বিশ্বাস, তেরখাদা উপজেলার আজোগড়া গ্রামের শেখ নুর মোহাম্মদের ছেলে শাহনেওয়াজ, ফুলতলা উপজেলার যুগ্নীপাশা গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে আরএফএল ইসলাম, উত্তর আলকার আব্দুর রাজ্জাক বিশ্বাসের ছেলে হাসান বিশ্বাস, তেরখাদার আজোগড়া গ্রামের নুর মোহাম্মদ শেখের ছেলে মো. ওমর ফারুক, রূপসা উপজেলার বাগমারা গ্রামের নাসির উদ্দিন হাওলাদারের স্ত্রী মিসেস রত্না বেগম, কাজদিয়া মডেল ভিলেজ এর শহীদ গোলাম রসুলের ছেলে সৈয়দ খায়রুজ্জামান, পূর্ব বাগমারার হাবিব হাওলাদারের ছেলে নাসির হাওলাদার, রহিম নগর গ্রামের আজাদ খানের ছেলে হাবিব খান এবং ইলাহীপুর মধ্যপাড়ার ফরিদ মিয়ার ছেলে মো. শুকুর আলী।

এ বিষয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিপ্তর খুলনার গোয়েন্দা শাখার ইন্সপেক্টর পারভীন আক্তার জানান, প্রতি তিন মাস অন্তর মাদক ব্যবসায়ীদের তালিকা হাল নাগাদ করা হয়। এ তালিকায় সংখ্যা কখনও বাড়ে, আবার কখনও কমে।

পারভীন আক্তার আরও জানান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর মাঝে মধ্যে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছে। এ ছাড়া র‌্যাব ও পুলিশ মাদক নির্মূলে অভিযান চালাচ্ছে। এসব অভিযানে প্রতিদিনই মাদকদ্রব্য জব্দ করা হচ্ছে।

0Shares

Comment here