অর্থনীতিখেলার মাঠেজাতীয়

ভালুকায় কঠোর নিরাপত্তা রাত পোহালেই পৌর নির্বাচনের ভোটগ্রহণ 

সাইফুল ইসলাম ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ
রাত পোহালেই তৃতীয় ধাপে ময়মনসিংহের ভালুকা পৌরসভা নির্বাচন ভোটগ্রহণ শুরু হবে। এই ভোটের মাধ্যমেই পৌরবাসী তাদের কাঙ্ক্ষিত জনপ্রতিনিধি বা পৌর পিতা নির্বাচিত করবেন।
শনিবার (৩০ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে একযোগে কঠোর নিরাপত্তায় বিকাল ৪টা পর্যন্ত পৌরসভার ১০টি কেন্দ্রে ৭৫টি বুথে ব্যালটের মাধ্যমে একটানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
নির্বাচনকে ঘিরে বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) রাতে সব ধরণের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা সম্পন্ন হয়ে গেছে। এবারের নির্বাচনে প্রার্থী ও ভোটারদের মাঝে বেশ উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যায়।
ভোটগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে ব্যালটসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদি, প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং, পোলিং, আনসার, ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের দায়িত্ব পালনে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে।
নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ভালুকা পৌরসভার মোট ভোটারের সংখ্যা রয়েছেন ২৫ হাজার ৪৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১২ হাজার ৬শ ৮২ জন আর মহিলা ভোটার ১২ হাজার ৩শ ৬২ জন।
ভালুকা পৌর নির্বাচনের ভোট কেন্দ্রগুলো হলো- ১ নম্বর ওয়ার্ডে ভালুকা কোট ভবন, ২ নম্বর ওয়ার্ডে ভালুকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে ভালুকা সরকারি কলেজ, ৪ নম্বর ওয়ার্ডে কোইকা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, বিআরডিবি ভালুকা, ৫ নম্বর ওয়ার্ডে পূর্ব ভালুকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৬ নম্বর ওয়ার্ডে পৌর ভবন ভালুকা, ৭ নম্বর ওয়ার্ডে দক্ষিণ ভালুকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৮ নম্বর ওয়ার্ডে আশরাফুল উলুম কাউমী মাদ্রাসা বাগড়াপাড়া, ভালুকা, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে কাঠালী সরকারি বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয় (নতুন ভবন) এবং কাঠালী সরকারি বালিকা প্রাথমিক বিদ্যালয় (পুরাতন ভবন) কাঠালী, ভালুকা।
শনিবার (৩০ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও স্বতন্ত্র মেয়র পদে তিনপ্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কাউন্সিলর পদে লড়ছেন ৩২ জন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের কাউন্সিলর ৮ জনসহ মোট ৪৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
মেয়র পদে ৩ প্রার্থী হলেন- বর্তমান মেয়র এ. কে. এম মেজবাহ উদ্দিন কাইয়ুম (নৌকা), আলহাজ্ব মো. হাতেম খান (ধানের শীষ) ও মো. ছাইফুল ইসলাম সুজন নারিকেল গাছ।
এদিকে, ভোটে অংশগ্রহণকারী প্রার্থীদের অবগতির জন্য ভালুকা পৌরসভার নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল এবং ঢাকা জেলার অতিরিক্ত নির্বাচনী রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) এক গণ-বিজ্ঞপ্তি জারী করেছেন।
গণ-বিজ্ঞপ্তিতে তিনি উল্লেখ করেন, আসন্ন ভালুকা পৌরসভার ৩০ জানুয়ারির নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরুর পূর্ববর্তী ৩২ ঘণ্টা ও ভোট গ্রহণের পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা ভালুকা পৌরসভা এলাকায় কোন ব্যক্তি জনসভা আহ্বান, যোগদান, মিছিল, শোভাযাত্রা, আক্রমণাত্মক কাজ, বিশৃঙ্খল আচরণ, ভোটার বা নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত কোন ব্যক্তিকে ভয়ভীতি প্রদর্শন, অস্ত্র বা শক্তি প্রদর্শন করতে পারবেন না।
গণ-বিজ্ঞপ্তিতে তিনি আরও উল্লেখ করেন, কোনো ব্যক্তি উল্লেখিত কার্যকলাপের দায়ে দোষী সাব্যস্ত হলে ন্যূনতম ৬ মাস ও অনধিক ৭ বছর কারাদণ্ডে দণ্ডিত হবেন।
সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা গ্রহণ করা হয়েছে জানিয়ে ভালুকা উপজেলা নির্বাচন রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি ও আনসার বাহিনীর পাশাপাশি ৯টি কেন্দ্রে নয়জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবেন।
ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন বলেন, পৌর এলাকায় নিয়মিত টহলের পাশাপাশি অধিক সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি রয়েছে আনসার ও বিজিবির বিশেষ টিম। পৌর নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হওয়ার লক্ষ্যে পৌর এলাকা নিরাপত্তায় রাখা হয়েছে। যে কোনো সমস্যা নিরসনে আমরা সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছি।
0Shares

Comment here