জাতীয়রকমারিরাজনীতিস্বাস্থ্যপাতা

উচ্ছেদ অভিযানে কেউ হেয় প্রতিপন্ন হলে ডিএসসিসির বিষয় নয়: তাপস

দিগন্তর ডেস্ক : রাজধানীতে নকশা বহির্ভূত দোকান উচ্ছেদ অভিযান কার্যক্রমকে কোনোভাবেই বাধাগ্রস্ত করা যাবে না উল্লেখ করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, এই উচ্ছেদ অভিযান কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে নয়, অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে। কোনো ব্যক্তি যদি এতে হেয় প্রতিপন্ন হন, সেটা তার বিষয়।

বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) ডিএসসিসির ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাসাবো বালুর মাঠ সংলগ্ন এলাকায় বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রের (এসটিএস) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তাপস।

গতকাল (মঙ্গলবার) নকশা বহির্ভূত দোকান বরাদ্দ দিয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে সাবেক ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকনসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার আবেদন করেন ফুলবাড়িয়া সুপারমার্কেট-২ এর দোকান মালিক সমিতির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলু। বুধবার এই মামলা গ্রহণ করে তা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

তবে মঙ্গলবার আদালতে মামলার আবেদনের পর সাঈদ খোকন বলেছিলেন, ‘সবাই বলছে, বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলুকে দিয়ে সব নোংরামি করছেন। এতে করে তার (তাপস) নিজের ও দলের ইমেজ ক্ষুণ্ন হচ্ছে।

বুধবার কোনো ব্যক্তির নাম উল্লেখ না করে মেয়র তাপস বলেন, ‘আমি আবারও খুব পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, আমাদের এই অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ কার্যক্রম কোনো ব্যক্তি কেন্দ্রিক না। কোনো ব্যক্তি যদি এতে হেয় প্রতিপন্ন হন, লজ্জিত হন, সেটা ওই ব্যক্তির বিষয়। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরশনের বিষয় নয়।

তিনি বলেন, অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান থাকবে। কোনোভাবেই এই কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করা যাবে না। আমরা কোনোভাবেই আপস করব না।

নকশা অবৈধ দোকান উচ্ছেদে গত ৮ ডিসেম্বর থেকে রাজধানীর ফুলবাড়িয়া সুপারমার্কেট-২ এ অভিযান চালাচ্ছে ডিএসসিসি। সংস্থাটি জানিয়েছে, নকশা অনুযায়ী এই মার্কেটে দুই হাজার ২৮৪টি দোকান থাকার কথা। কিন্তু গত কয়েক দশকে সেখানে নকশা বহির্ভূত ভাবে ৯১১টি দোকান নির্মাণ করা হয়েছে। এসব দোকানকে বৈধতা দিতে চেষ্টা করেছিলেন সাবেক মেয়র সাঈদ খোকন।

0Shares

Comment here