জাতীয়রকমারিরাজনীতি

এবার সত্যিই মারা গেলেন ‘বদি ভাই’

আপেল মাহমুদ :গুজবকেই সত্যি করে পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন বাংলা নাটকের স্বনামধন্য অভিনেতা ‘বদি ভাই’ খ্যাত আব্দুল কাদের। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আব্দুল কাদেরের পুত্রবধূ জাহিদা ইসলাম জেমি।

এর আগে জেমি জানিয়েছিলেন, তার শ্বশুর দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। কিন্তু দেশের একাধিক হাসপাতালে পরীক্ষা-নীরিক্ষা করানোর পরও কোনো রোগ ধরা পড়ছিল না।

পরবর্তীতে অভিনেতা কাদেরের পুরো শরীর সিটি স্ক্যান করালে টিউমার হয়েছে বলে জানা যায়। এরপর পারিবারিক সিদ্ধান্তে গত ৮ ডিসেম্বর তাকে ভারতের চেন্নাইয়ের ক্রিশ্চিয়ান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর গত ১৫ ডিসেম্বর হাসপাতালটির চিকিৎসকরা জানান, কাদের ক্যানসারে আক্রান্ত।

কিন্তু শারীরীক অবস্থা সংকটাপন্ন থাকায় সে সময় চিকিৎসকরা তাকে কেমো থেরাপি দেননি। এরপর পারিবারিক সিদ্ধান্তে গত ২০ ডিসেম্বর আব্দুল কাদেরকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। দেশে ফেরার প্রথমে গুজব ছড়িয়ে পড়ে অভিনেতা করোনায় আক্রান্ত। এরপর রটে তার মৃত্যুর খবর বলেও জানান তার পূত্রবধু।

কিন্তু দুটি খবরই গুজব বলে প্রমাণিত হয়। এবার সত্যিই মারা গেলেন ‘বদি ভাই’।

১৯৯৩-১৯৯৪ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে (বিটিভি) প্রচারিত ‘কোথাও কেউ নেই’ ধারাবাহিক নাটকে ‘বদি’ চরিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান আব্দুল কাদের। নাটকটি রচনা করেছিলেন প্রয়াত কিংবদন্তি কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। পরিচালনা করেছিলেন মো. বরকতুল্লাহ। সেখানে আব্দুল কাদেরকে দেখা যায় তিন সদস্যের মাস্তান দলের বস বাকের ভাইয়ের সহকারীর চরিত্রে। যে কিনা বাকের ভাইয়ের কথায় ওঠে-বসে।

এরপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি আব্দুল কাদেরকে। পরবর্তীতে তিনি হুমায়ূন আহমেদ রচিত ও পরিচালিত আরও বেশ কিছু নাটকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেন। পাশাপাশি অভিনয় করেন অন্যান্য পরিচালকদের বহু নাটকে। এছাড়া তিনি দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় টিভি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র নিয়মিত শিল্পী। আব্দুল কাদের মুখ দেখিয়েছেন বড় পর্দায়ও। ২০০৪ সালে রিয়াজ ও শ্রাবন্তী অভিনীত ‘রং নাম্বার’সহ বেশ কয়েকটি ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন।

 

0Shares

Comment here