জাতীয়রকমারিরাজনীতি

ভাস্কর্য নাটক তৈরি করে ওয়াজ-মাহফিল বন্ধ করে দিয়েছে সরকার

স্টাফ রিপোর্টার : আজকে ‘ভাস্কর্য নাটক’ তৈরি করে সারাদেশে আলেমদের ওয়াজ-মাহফিল বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। এই সরকার ভীত-সন্ত্রস্ত ও ক্ষমতা হারানোর ভয়ে আতঙ্কিত। তাই তারা আজকে জনগণের মিটিংকেও নিয়ন্ত্রণ করতে চায়।

মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড়ে ঢাকসুতে হামলার এক বছর পূর্তি ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে এ মন্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ ঢাকসুতে হামলার এক বছর পূর্তি ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে কালো পতাকা মিছিল নিয়ে পল্টন মোড়ে আসে ছাত্র অধিকার পরিষদ।

নুর বলেন, অনুমতি ছাড়া সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছে ডিএমপি। আমরা ডিএমপির কোনো অনুমতি নিয়ে আজকের সমাবেশ করিনি। আমরা কোনো প্রকার সভা-সমাবেশ করার জন্য এই অবৈধ ভোটারবিহীন সরকার বা ডিএমপির ধার ধারি না।

তিনি বলেন, সংবিধান আমাদেরকে সভা-সমাবেশ ও মিটিং মিছিল করার অধিকার দিয়েছে। সেই অধিকার ভোটারবিহীন সরকার কেড়ে নেয়ার কে? তাই আমি সকল রাজনৈতিক দলকে বলব, সভা-সমাবেশ করার জন্য এই ভোটারবিহীন সরকার বা ডিএমপির কোনও অনুমতি নেবেন না। যদি আপনারা এই সরকারের অনুমতি নিয়ে সভা-সমাবেশ করেন, তাহলে আমরা মনে করবো আপনারা স্বৈরাচারের আইন-কানুন মানছেন এবং স্বৈরাচারকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন।

তিনি আরো বলেন, এদেশের সকল অসম্প্রদায়িক জনগণকে বলবো, ভোটারবিহীন অবৈধ স্বৈরাচার সরকারের ফাঁদে পা দেয়া যাবে না। তারা বিভিন্ন সময়ে ‘জঙ্গি নাটক’ সাজিয়ে পশ্চিমাদের সাহায্য নেয়ার চেষ্টা করেছে। পশ্চিমাদের বুঝিয়েছে এদেশে উগ্র ইসলামবাদ আছে। সেজন্য বিভিন্ন জঙ্গি অপারেশনের নাটক সাজিয়েছে।

নুর বলেন, সাংবাদিক সাগর-রুনির হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আট বছর পেরিয়ে গেছে। এখনও আসামিদের গ্রেপ্তার করতে ব্যর্থ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। আর ডাকসুতে হামলাকারীদের চিহ্নিত করতে সাত দিনের তদন্ত প্রতিবেদন ১২ মাসেও দিতে পারেনি ঢাবি প্রশাসন। আমরা ধিক্কার জানাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দলকানা প্রশাসনের প্রতি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার যেমন হয়েছে, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার যেমন হয়েছে, তেমনি তনু হত্যাসহ সব হত্যাকাণ্ডের বিচার বাংলাদেশের মাটিতে হবে।

এসময় তিনি নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে রাষ্টপতিকে চিঠি দেওয়া ৪২ জন বিশিষ্ট নাগরিককে ধন্যবাদ জানান।

সরকার এখন তাদের নিরাপত্তার জন্য সেফ এক্সিট’ খুঁজছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, আওয়ামী লীগের ভাইদের বলবো, আপনারা যদি এদেশে রাজনীতি করতে চান, আপনারা জনগণের সঙ্গে যে অন্যায়-নির্যাতন-নিপীড়ন করেছেন, তার জন্য ক্ষমা চেয়ে জনগণের কাতারে আসেন। আপনাদের সঙ্গে বুকে বুক মিলিয়ে রাজনীতি করবো।

 

0Shares

Comment here