জাতীয়রকমারিরাজনীতিস্বাস্থ্যপাতা

রাতজাগা চালকদের ঘুম তাড়াতে চায়ের কেটলি হাতে পুলিশ

চট্টগ্রাম নিজস্ব প্রতিবেদক : রাতের মহাসড়কে দুর্ঘটনা রুখতে চালকদের জন্য চা-বিস্কুটের ব্যবস্থা করেছে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ। রয়েছে হাত-মুখ ধোয়ার ব্যবস্থাও। পাশাপাশি দেওয়া হচ্ছে সচেতনতামূলক পরামর্শ।

গত ১ মাস ধরেই ঘুম ঘুম চোখে গাড়ি চালানো বন্ধে সচেতনতামূলক উদ্যোগ ‘রিফ্রেশমেন্ট কর্নার’ চালু করেছেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (রাঙ্গুনিয়া সার্কেল) মো. আনোয়ার হোসেন শামীম।

চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়ক এবং চট্টগ্রাম-রাঙামাটি আঞ্চলিক মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্ট জুড়ে নৈশকোচ ও ট্রাক চালকদের এই অস্থায়ী বিশ্রামাগারে এনে গরম পানিতে মুখ ধোয়া, চা-বিস্কুট খাওয়ানোর পাশাপাশি চোখে ঘুম জড়ানো অবস্থায় গাড়ি চালানোর বিপদ সম্পর্কে উপদেশ দিচ্ছেন সার্কেল এএসপি।

এএসপি মো. আনোয়ার হোসেন শামীম গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, শীতের রাতে গাড়ি চালাতে চালাতে অনেক চালকেরই চোখ বন্ধ হয়ে আসে। অসাবধানতায় প্রায়ই ঘটে যায় ছোট-বড় দুর্ঘটনা। এ প্রেক্ষিতে চালকদের সচেতন করার লক্ষ্যেই মূলত মুখ ধোয়ার জন্য গরম পানি এবং চা-বিস্কুটের ব্যবস্থা সহযোগে আমাদের এই রিফ্রেশমেন্ট কর্নার।

তবে বেশিরভাগ চালকই হয়তো এটাকে পুলিশের চাঁদাবাজির নয়া কৌশল ভেবে বিভিন্ন অজুহাতে নামতে চাচ্ছেন না। কিন্তু পরে যখন দেখছেন কেটলি হাতে চা-কফি নিয়ে এগিয়ে আসছেন পুলিশ সদস্যরা, তখনই ভুল ভাঙে তাদের।

নুরুল আলম নামের এক বাসচালক বলেন, রাতে গাড়ি চালাতে অনেক সময়ই তাদের ঘুম চলে আসে। কিন্তু গভীর রাতে চা খাওয়া বা হাত-মুখ ধোয়ার ব্যবস্থা খুঁজে পাওয়া মুশকিল। পুলিশ যে তাদের জন্য এতটা ভাবছে, এটা আনন্দের।

রাউজানের পাহাড়তলী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মুহাম্মদ রোকন উদ্দিন বলেন, দুর্ঘটনা রোধে এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়। দেশের সব গুরুত্বপূর্ণ সড়ক-মহাসড়কে স্থায়ীভাবে এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করা দরকার। এতে রাত্রিকালীন দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে আসবে।

 

0Shares

Comment here