জাতীয়লাইফস্টাইল

রাজধানী’তে যাত্রীবাহী বাসে অগ্নিসংযোগ, “অশনি সংকেত”

আফজাল আহমেদ ।। গত বৃহস্পতিবার রাজধানী’র কয়েকটি স্থানে যাত্রীবাহী বাসে অগ্নি সন্ত্রাসের ঘটনা ঘটেছে। জনমনে প্রশ্ন, করোনা কালীন এই মহা দুঃসময়ে যাত্রীবাহী বাসে অগ্নিসংযোগ বা অগ্নি সন্ত্রাস কিসের আলামত? একি ভয়ঙ্কয়, ভয়ানক ‘অশনি সংকেত’…

সেইসাথে মাত্র কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে রাজধানী’র বিভিন্ন এলাকার যাত্রীবাহী বাসে অগ্নি সংযোগ নগরবাসী সহ সারাদেশে চাঁপা আতংকের সৃষ্টি করেছে। তবে কি কারণে এই অগ্নিসংযোগ, জানাতে ব্যর্থ প্রশাসন এবং ফায়ার সার্ভিসরের সদর দপ্তর।

খিলগাঁও শাহজাহানপুর এলাকায় প্রথম অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটেলেও পরাপর কয়েকটি এলাকায় যেমন- কাঁটাবন, মতিঝিল, গুলিস্থান, বংশালের নয়াবাজার, পল্টন সহ নর্দ্দা এলাকার যাত্রীবাহী বাসে অগ্নি সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের ঘটনা সংগঠিত হয়। ফায়ার সার্ভিস সহ প্রশাসন ও সাধারণ জনতা দ্রুত ছড়িয়ে পরা আগুন নেভানোর জন্য গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর “দৈনিক দিগন্তর” প্রতিনিধিকে জানান, আমরা আমাদের স্বাধ্যানুযায়ী দ্রুত ছড়িয়ে পরা অগ্নি নির্বাপনের ব্যবস্থা গ্রহণ করি এবং রাজধানী’র নর্দ্দা এলাকায় আরো একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নেভানোর জন্য দ্রুত পাঠানো হয়েছে।

এবিষয়ে সূধীজনেরা মনে করেন, যাত্রীবাহী বাসে অগ্নি সংযোগ অবশ্যই সুপরিকল্পিত হত্যাকান্ডের ভয়ঙ্কর অপচেষ্টা। আশাকরি প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তর এই দুষ্ট চক্রকে তদন্ত পূর্বক দ্রুত গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

যাত্রীবাহী বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় সি.সি টিভি ফুটেজ পর্যবেক্ষণ সহ সন্দেহভাজন কয়েকজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা এবং তদন্ত অব্যাহত আছে।

0Shares

Comment here