লাইফস্টাইল

সরকারী চাকরী পাইয়ে দেয়ার কথা বলে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ায় অভিযোগ, থানায় মামলা

 

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ সরকারি চাকরী দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় অর্ধকোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে একজন সরকারী কর্মকর্তার নামে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সিনিয়র ল্যাব প্যাথলজিষ্ট প্রভাস চন্দ্র হালদার নামে জনৈক ঐ ব্যাক্তি এ অপকর্ম করেছেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

প্রভাস চন্দ্র (২০১৮ সালের দিকে) উর্ধতন একজন সরকারী কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে এই চাকরিগুলো পাইয়ে দিবেন বলে বিভিন্ন জনের নিকট থেকে প্রায় ৫৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। বর্তমানে তিনি রাজধানীর মিটফোড হাসপাতালে সিনিয়র ল্যাব প্যাথলজিষ্ট হিসেবে কর্মরত রয়েছেন বলে জানাগেছে।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগীদের মধ্যে মিন্টু হালদার জানান চাকরী বাবদ আমি (আমার ভাবীর জন্য) প্রভাসকে ১৩ লক্ষ টাকা নগদ দেই এবং প্রমান সাপেক্ষে সে আমাকে ১৩ লক্ষ টাকার একটি চেক দেয়। পরে চাকরী দিতে না পারায় আমি ব্যাংকে চেক ভাঙতে গেলে সে আমাকে জানায় একাউন্টে এখন এতো টাকা নেই আমি যেন কিছুদিন পরে যাই, এভাবে সে আমাকে সময় ক্ষেপন করতে থাকে। এক সময় আমি প্রভাসের তালবাহানা বুযতে পেরে তার নামে মোঃ পুর থানায় গত ৪/৪/২০১৯ ইং তারিখ একটি সাধারন ডায়েরী করি যার নম্বর-৩১৮।

চাকরী প্রার্থীদের মধ্যে কল্পনা রানী হালদার, টুম্পা রানী, মৃনাল কান্তী, অমিত সহ প্রায় ডজন খানেক লোকদের সঙ্গে কথা বলে জানাযায় প্রভাস চন্দ্র তাদেরকে চাকরি পাইয়ে দিবেন বলে তাদের নিকট থেকে টাকা নিয়েছেন কিন্তু সময় অতিবাহিত হওয়া সত্বেও সে একজনকেও চাকরী দিতে পারেননি। উল্টো টাকা ফেরত চাইলে তিনি আমাদেরকে মেরে ফেলারও হুমকি দিচ্ছেন। এ বিষয়ে চাকরী প্রার্থী অমিত কুমার খুলনা কোর্টে একটি মামলা রুজু করেছেন বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন প্রমান থাকা স্বত্বেও প্রশাসন কেন তাকে গ্রেফতার করেছেনা জানিনা, আমরা এ প্রতারকের শাস্তি দাবী করছি।

এ বিষয়ে..

0Shares

Comment here