লাইফস্টাইল

ইসলামপুরে প্রতিমা সাজানো শেষ পর্যায়ে, এবার ২০টি মন্ডপে হবে শারদীয় দূর্গাৎসব

 

এস এম হোসেন রানা ইসলামপুর প্রতিনিধি :  জামালপুর ইসলামপুর উপজেলায় দূর্গাপূজা প্রতিমা তৈরি শেষের দিকে।এবার ২০ টি মন্ডপে হবে শারদীয় দূর্গাপূজার উৎসব। অন্যান্য বছরের ন্যায় ২০২০ সালের প্রাক দূর্গা পুজার রেশ একই মেজাজে নেই, তবুও উমা ফিরবেন ঘরে, তাই বাঙ্গালি এই বিশ্বজুড়ে সংকটের মধ্যেও ঘরের মেয়েকে যথাসাধ্য বরণ করে নেওয়ার চেষ্টায় রয়েছে। তবে প্রতিটি পদক্ষেপেই বয়েছে মড়ক, মহামারীর প্রবল আশঙ্কা। করোনার প্রবল দাপটের মধ্যে এবছর দূর্গাপুজোয় মা দূর্গা কীসে আসবেন, আর কীভাবে গমন করবেন, তা দেখে নেওয়া যাক শাস্ত্র মতে। উপজেলা পৌর শহর থেকে শুরু করে গ্রামের পূজা মন্ডপগুলোতে চলছে দেবীকে বরণ করে নেয়ার শেষ পর্যায়ের প্রস্তুতি। ইসলামপুর উপজেলায় ২০ টি মন্ডপে চলছে দূর্গা পূজার প্রস্তুতিমুলক কাজ। সনাতন ধর্মালম্বীরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধন অটুট রাখতে এবং আনন্দ দুঃখ বেদনা ভাগাভাগি করতে আগামী ২১ অক্টোবর দুর্গতিনাশিনী দূর্গার আগমনের মাধ্যমে শুরু হবে শারদীয় দূর্গোৎসব। তাই শিল্পীরা প্রতিমা নির্মানে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ফলে উপজেলা জুড়ে চলেছে এখন দূর্গাপূজার ব্যাপক প্রস্তুতি। প্রতিমা গুলিতে রংতুলির কাজ প্রায় শেষের দিকে।

সরেজমিনে ইসলামপুর পৌর শহরের বেশ কয়েকটি প্রতিমা শিল্পালয় ঘুরে দেখা যায়, দুর্গা পূজার প্রস্তুতির প্রায় শেষ মুহুর্তে মৃৎ শিল্পীরা ব্যস্ত আপন মনে প্রতিমা রাঙ্গাতে। কাপড় পরিধান ও তুলির আচঁরে জীবন্ত করে তুলছে প্রতিমাকে।
পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডে গৌর নিতাই আশ্রম (হরিসভা)এবং শ্রী শ্রী বাসন্তী দেবী পূজা (মৌজাজাল্লা, অষ্টমীঘাট) মন্দিরে গিয়ে দেখা গেছে প্রতিমা নির্মাণে ব্যস্ত রয়েছেন শিল্পীরা, এ সময় মন্দিরে পরিচালনা কমিটির সভাপতি শ্রী নারায়ণ কর্মকার বলেন-বর্তমান মহামারী করুনা ভাইরাসের কারণে বিশাল আকারে অনুষ্ঠান করা সম্ভব হবেনা তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। পূজা উদযাপন পরিষদের ২৬ দফা নিদের্শনায় বলা হয়েছে, মহালয়ার আয়োজন এবার হবে সীমিত আকারে, প্রতিটি কাজে মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। প্রতিমা তৈরি থেকে পূজা সমাপ্তি পর্যন্ত প্রতিটি মন্দিরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, ভক্ত-পূজারি ও দর্শনার্থীদের জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখা, সকলে বাধ্যতামুলকভাবে মাস্ক পরা, দর্শনার্থীদের মধ্যে ন্যূনতম তিন ফুট শারীরিক দুরত্ব বজায় রাখা।উল্লেখ্য যে, সরকারি ত্রাণ তহবিল থেকে প্রতিটি পূজা মন্ডপের জন্য ৫০০ কেজি চাউল বরাদ্ধ করা হয়েছে।
এছাড়াও সনাতন ধর্মালম্বিদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দূর্গাপূজাকে ঘিরে ইসলামপুর থানা ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মামুন দিগন্তরকে জানান-পৌরসভার ভিতরে ১৭টি পূজা মন্ডপের জন্য ৮টি মোবাইল টহল দল থাকবে। বাকি তিনটি ইউনিয়নের জন্য তিনটি মোবাইল টহল দল থাকবে।

 

 

0Shares

Comment here