অর্থনীতিজাতীয়প্রযুক্তিস্বাস্থ্যপাতা

শ্রীমঙ্গলে বাস-জীপ মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২,আহত ৫ জন

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি সৈয়দ আমিনুল ইসলাম: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে রবিবার (৪অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে ঢাকা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কে শ্রীমঙ্গলের শেষ প্রান্ত বাহুবল উপজেলার রশিদপুরে ৫নং গ্যাস ফিল্ড এলাকায় বাস-জীপ মুখোমুখি সংঘর্ষে ২জন নিহত ও ৫ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

শ্রীমঙ্গল সাতগাঁও হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি সূত্রে জানা যায়, শ্রীমঙ্গল থেকে হবিগঞ্জমুখী একটি লোকাল বাস এবং বাহুবলের ফয়জাবাদ থেকে একটি জীপ শ্রীমঙ্গল আসার পথে মুখোমুখি সংঘষের ঘটনা ঘটে। এতে জীপ ড্রাইভার সঞ্জিদ দাস (৩০) ঘটনাস্থলেই মারা যান। গুরুত্বর আহতদের মধ্যে ছয় জনকে শ্রীমঙ্গলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চার জনকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আমতলী চা বাগান থেকে জিপ গাড়িতে করে ঢাকা সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে একটি জিপ শ্রীমঙ্গলের দিকে যাচ্ছিলো। এসময় বিপরীত দিক থেকে  আসা হবিগঞ্জ সিলেট একপ্রেস বাসটি (ঢাকা মেট্রো ব ১১-০৯০২) বেপরোয়াভাবে রাস্তার বা দিকের পরিবর্তে ডান দিকে এসে সরাসরি জিপ গাড়িটিকে মুখোমুখি ধাক্কা দেয়। এতে জিপ গাড়িটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এসময় গাড়ির চালক সঞ্জিত (৩০) ঘটনাস্থলেই মারা যান।

সাতগাও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৭ জনকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তারা মহেস রাজগড় (৪৫) নামে আরেকজনকে মৃত ঘোষনা করেন। এই ঘটনায় আহতরা হলেন রুহেনা আক্তার (২), কুলসুমা আক্তার(৩০), আমেনা বেগম (৫০), তমা (৪), রিমা (৭), অসিম (১২)। নিহত জিপ চালক সঞ্জিত সাতগাঁও কামার পাড়ার বাসিন্দা ও মহেস রাজগড় বাহুবলের পাকশেল চা বাগানের বাসিন্দা।

এদিকে নিহত ও আহতরা চা বাগানের শ্রমিক হওয়ায় এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন চা শ্রমিকরা। এতে যোগহন সিএনজি সহ বিভিন্ন ছোট ছোট পরিবহনের চালকরা। ঘটনাটির দৃশান্তমুলক শাস্তি দাবী করে, শ্রীমঙ্গল উপজেলার লছনা চৌমুহনা এলাকা অবরুদ্ধ করে রাখে। এর কারনে দুই পাশে প্রায় দেড় কিলোমিটার করে গাড়ির লম্বা লাইন দেখা যায়।

শ্রীমঙ্গল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) নয়ন কারকুন বলেন, দূর্ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে শ্রমিকরা লছনা এলাকা অবরুদ্ধ করেছিলো। পরে আমরা গিয়ে তাদের সাথে কথা বলায় তারা অবরোধ তুলে নিয়েছে। আমরা হবিগঞ্জ মালিক সমিতি এবং আন্দোলনকারি দের সাথে একটি সভা করবো। সেখানে সিদ্ধান্ত হবে। আপাতত তারা অবরোধ তুলে নিয়েছে।

0Shares

Comment here