খেলার মাঠেজাতীয়ধর্মকর্মরাজনীতিলাইফস্টাইলস্বাস্থ্যপাতা

করোনা কালীন সময়ে সাধারণ মানুষের পাশে ‘বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশন’

এম.এ জাহান || ‘বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশন’ দুঃস্থ, অসহায় মানুষের মঙ্গলার্থে প্রতিষ্ঠিত একটি অলাভজনক, অরাজনৈতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন। উহানের লকডাউন ঘোষনার পর ব্যক্তিগত উদ্দ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ-উল-ইসলামের জ্যেষ্ঠ পুত্র জনাব শেখ মোঃ জহিরুল ইসালাম শামীম এবং মোঃ সেকান্দার উভয়ের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় পথচারী সহ এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও কাপড়ের তৈরী  মাস্ক বিতরণ শুরু করেন।

৮ই মার্চ ২০২০ইং তারিখ হইতে পারিবারিক সহযোগীতায় অসংখ্য অগুনিত সাধারণ মানুষের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশনের পথচলা।

এদের সঙ্গে পরবর্তীতে যুক্ত হন আশরাফুন্নেসা সুমি, মাহবুবুল বাসিত, জেবুন্নেছা রিমঝিম, আল-আফ-অনাম, ইমদাদুল হক এবং বাবর চৌধুরী।

বিশ্ব মহামারী করোনা কালীন দুর্যোগের সময়ে রাজধানীর মালিবাগ, শান্তিবাগ, শহিদবাগ, গুলবাগ, খিলগাঁও, শাহজাহানপুর সহ পার্শ্ববর্তী এলাকার সহস্রাধিক দুঃস্থ, অসহায় ও স্বল্প-আয়ের মধ্যবিত্ত মানুষের মাঝে নিজেস্ব উদ্যোগে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ পূর্বক নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ‘বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশন’।

সম্প্রতী সংগঠনটি উত্তরাঞ্চলের বন্যা দুর্গতদের মাঝে স্বাধ্যানুযায়ী ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ সহ স্থানীয় অসয়হায় সনাতনধর্মী এক মায়ের সৎকারের যাবতীয় ব্যয়ভার বহন করেন। এমনকি স্বর্গীয় সেই মায়ের দেড় মাসের এক এতিম শিশু সন্তানের যাবতীয় দ্বায়িত্ব গ্রহণ করেছে ‘বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশন’ নামের এই সংগঠনটি।

‘বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশন’ এর প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ-উল-ইসলামের জ্যেষ্ঠ পুত্র শেখ মোঃ জহিরুল ইসালাম শামীম ‘দৈনিক দিগন্তরকে জানান, আমরা আমাদের সামর্থ অনুযায়ী অসহায় মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছি, আমাদের এই সেবা কার্যক্রম অনির্দিষ্ট কালের জন্য অব্যাহত থাকবে ইনশাল্লাহ্। বর্তমানে সংগঠনটি বিভিন্ন অঞ্চলের দুঃস্থ, অসহায়, স্বল্প-আয়ের মানুষের মাঝে প্রতি সপ্তাহে ‘উন্নতমানের খাদ্য বিতরণ কার্যক্রম’ পরিচালনা করছে এবং আগামীতে শীতবস্ত্র বিতরণ, শিশু শিক্ষা উপকরণ বিতরণ সহ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প স্থাপনের মাধ্যমে দারিদ্রমুক্ত সমাজ গড়ার পরিকল্পনা রয়েছে।


স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশনে যাহারা অসামান্য অবদান রেখেছেন তার হলেন উপদেষ্টা- রাশেদ মাহমুদ, সেলিমুজ্জামান জুয়েল, এজাজ উদ্দিন, হাবিব বিন আহমেদ, সায়েম, সালাউদ্দিন, শাহরিয়ার, পিপাস, রনি, রুপক, আশরাফুন্নেসা সুমি, শোয়েব আজিজ, সামসুদ্দিন মানিক, সাজিদ হায়দার চৌধুরী, শাহিন শিমু, মুনাবির ইউছুফ, মুসাবিন তারেক, আশিক শাওন, রশিও রুশো, মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ্, মোঃ সাইফুর রহিম সায়েম, রুপক এলাহী, এম.এম সজীব, সাজ্জাদ সাদেক, ডাঃ শাহিদ হায়দার চৌধুরী, সাঈদ হাসান রনি, উম্মে হানি সুইটি (প্রবাসী) এবং অনন্য সহযোগী ভিকারুন্নেছা স্কুল এন্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী জেবুন্নেছা রিমঝিম যে তাহার সঞ্চিত দশ সহস্রাধিক নগদ অর্থ সংগঠনের তহবিলে দান করেন, সেইসাথে সংগঠনটির সম্মানিত দাতা সদস্য ডাঃ শবনম মুস্তারী, শাহনাজ অক্তার, মোঃ সোহেল (মদিনা ফার্মেসী), শংকর ঘোষ, পুলক বাবু, মুশফিকুর রহমান রিয়াদ, এস.আই বসির সহ অনেকেই আর্থিক সহযোগীতা করেছন যাদের নিকট সংগঠনটি চির কৃতজ্ঞ থাকবে।

স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশনের দান-অনুদান সংগ্রহ, ত্রাণসামগ্রী ক্রয় এবং প্যাকেটজাতকরণ সহ দুঃস্থ ও মধ্যবিত্তদের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণের দ্বায়িত্ব নিষ্ঠার সহিত পালন করেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আশরাফুন্নেসা সুমি, জেবুন্নেছা রিমঝিম, মোঃ ইমদাদ হোসেন, মোঃ সেকেন্দার এবং বাবর চৌধুরী। সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ কোষাধ্যক্ষের দ্বায়িত্বে আছেন শান্তিবাগ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক জনাব মাহবুবুল বাসিত।
বিবেকের উদ্যোগ ফাউন্ডেশনের ত্রান বিতরণ কার্যক্রম চলাকালে সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন ডি.এম.পি কর্মকর্তা জনাব আমজাদ হোসেন।

0Shares

Comment here