খেলার মাঠেজাতীয়প্রযুক্তিরুপসী বাংলা

ব্যাপক জলাবদ্ধতায় দিনাজপুরে দুর্ভোগ চরমে, নদীর পানি বেড়ে বন্যার আশঙ্কা 

মোঃ মিজানুর রহমান রংপুর ব্যুরো চীফঃ দেশের উত্তরের জনপদ দিনাজপুর জেলায় ব্যাপক বৃষ্টিপাতের কারণে নিন্মাঞ্চলসহ সর্বত্রই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর গত ২৪ ঘন্টায় ৪৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে। বৃষ্টিপাত আগামী তিনদিন অব্যাহত থাকবে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর নিশ্চিত করেছে।
দিনাজপুর আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোফাজ্জুর রহমান জানান, মঙ্গলবার দুপুর ২:০০ ঘটিকা থেকে বুধবার দুপুর ২:০০ ঘটিকা পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় স্থানীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর ৪৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে।
গতকাল একই সময়ে ২৪ ঘন্টায় ৩১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। গত ২ দিনের অবিরাম বৃষ্টিপাত ও ঘনবর্ষণের কারণে জেলার নিন্মাঞ্চলসহ সর্বত্রই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।
রাস্তাঘাট জলাবদ্ধতার কারণে এবং বৃষ্টির পানি রাস্তার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় যানবাহন চলাচলে দারুণ বিঘ্ন ঘটছে। নিন্ম আয়ের মানুষ, দিনমুজুর ও শ্রমিকরা অবিরাম বৃষ্টিপাতের কারণে মাঠে ময়দানে কাজে যেতে পারছে না। ফলে নিন্ম আয়ের মানুষগণ অবিরাম বর্ষণের কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছে।
দিনাজপুর জেলার ছোট বড় ১৭টি নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে। বর্ষাকাল শেষে শরতের এই আশ্বিন মাসে মৌসুমি নিম্মচাপ ও বৃষ্টিপাত হওয়ায় নদীগুলোতে পানি বেড়ে বন্যা হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। দিনাজপুর শহর ঘেঁষে প্রবাহিত পুনর্ভবা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার কাছাকাছি উঠতে যাচ্ছে। এভাবে বর্ষণ হলে জেলার পুনর্ভবা, ঢেপা, ইছামতি, আত্রাই, ছোট যমুনা ও করতোয়া নদীসহ সবগুলো নদীর পানি বেড়ে বন্যা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
এদিকে নিন্মাঞ্চলের জলাবদ্ধতা এবং ঘনবসতি এলাকায় ডোবা, নালা, খালবিল পানিতে ভরে যাওয়ায় পুকুরের চাষ করা মাছ বের হয়ে যাওয়ায় মাছ চাষীরা মহাবিপাকে পড়েছে। জেলার অনেক এলাকায় মাছ চাষীদের পুকুরের মাছ বের হয়ে গেছে। চাষ করা মাছ পুকুরে বেঁধে রাখতে নেট জাল দিয়ে পুকুর ঘিরে মাছ ঠেকানোর জন্য চেষ্টা করছে চাষীগণ।
আবহাওয়া অধিদপ্তরের সূত্রটি আরো জানান, আগামী দুইদিন বৃষ্টিপাত ও বর্ষণ বেড়ে যেতে পারে। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মৌসুমি নিম্মচাপ অব্যাহত থাকার আশঙ্কা রয়েছে। ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে আবহাওয়া স্বাভাবিক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে সূত্রটি দাবী করেছে।
0Shares

Comment here