জাতীয়রকমারিস্বাস্থ্যপাতা

ভালুকায় জাল দলিল দিয়ে রেজিস্ট্রি করার অপচেষ্টা, লাইসেন্স স্থগিত

 

সাইফুল ইসলাম ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় ভুয়া স্বাক্ষরে চার একর জমির দলিল রেজিস্ট্রি করার চেষ্টার অভিযোগে এক দলিল লেখকের লাইসেন্স স্থগিত করা হয়েছে।
গত মঙ্গলবার সাবরেজিস্ট্রার এ সিদ্ধান্ত নিলেও গতকাল  বৃহস্পতিবার তা জানাজানি হয়।
ভালুকা সাবরেজিস্ট্রি কার্যালয় ও জমির মালিক সূত্রে জানা যায়,২০১০ সনের ১১ জানুয়ারী উপজেলার ধামশুর গ্রামের কাজল চন্দ্র পাল ও সজল চন্দ্র পাল আম-মোক্তা রেজিস্ট্রী একটি দলিলের মাধ্যমে চার একর জমি একই গ্রামের বাদল চন্দ্র পালের নামে লিখে দেন। পরবর্তিতে ২০১২ সালের ১৫ জানুয়ারী কাজল চন্দ্র পাল এবং ২৯ নভেম্বর  সজল চন্দ্র পাল পরলোকগমন করেন। ফলে চার একর জমির আগের দলিলের তথ্য গোপন করে বাদল চন্দ্র পাল তাঁর দুই ছেলের নামে দানের ঘোষনা দলিলের মাধ্যমে লিখে দেওয়ার জন্য চেষ্টা করেন। এই কাজে সহযোগীতা করেন ভালুকা সাবরেজিস্ট্রি কার্যালয়ের দলিল লেখক হারুন অর রশিদ। গত বুধবার ভিজিট কমিশন যোগে এই দলিল রেজিস্ট্রি করার চেষ্টা করেন ওই দলিল লেখক। দানের ঘোষনা এই দলিলে তিন জনকে স্বাক্ষী  হিসেবে দেখানো হয়েছে। অথচ তারা কেউই স্বাক্ষর দেননি। বিষয়টি জানাজানি হলে সাবরেজিস্ট্রার বোরহান উদ্দিন দলিলটি রেজিস্ট্রি করেননি এবং ওই দিনই দলিল লেখক হারুন অর রশিদের লাইসেন্স স্থগিত করেন।
এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে হারুন অর রশিদের সঙ্গে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি পরে কথা বলবেন বলে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।
দলিলের স্বাক্ষী হিসেবে দেখানো দেবল চন্দ্র পাল  বলেন, তিনি কোনো দানের ঘোষণা দলিলের স্বাক্ষী হিসেবে স্বাক্ষর দেননি। দলিলে তাঁর স্বাক্ষর ব্যবহার করা হয়েছে। এই বিষয়টি জানার পর লিখিত ভাবে ভালুকা সাবরেজিস্ট্রারকে জানিয়েছেন তিনি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভালুকার সাব রেজিস্ট্রার বোরহান উদ্দিন সরকার বলেন,ওই দলিল লেখক বিশ্বাস ভঙ্গ করেছেন। তাঁর লাইসেন্স স্থগিত করা হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। কাগজ পত্রে জামেলা থাকায় ওই দলিলটি রেজিস্ট্রি করা হয়নি।
0Shares

Comment here