জাতীয়রকমারিরুপসী বাংলা

ভালুকার বিরুনীয়া-বোর্ড বাজার রাস্তাটির বেহাল দশা; চরম দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ 

সাইফুল ইসলাম ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ
ময়মনসিংহে ভালুকা উপজেলার বিরুনীয়া-বোর্ড বাজার কাচা রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বর্ষাকালে সামান্য বৃষ্টি হলেই খানাখন্দে ভরা সড়কটিতে পানি জমে যায়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন চলাচলরত সাধারণ মানুষ ও স্কুল কলেজে যাওয়া-আসা শিক্ষার্থীরা। গত কয়েদিনে দিনের টানা বর্ষণে এই ভোগান্তি চরম আকার ধারণ করেছে।
সড়কটি সংস্কারের জন্য এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণের কাছে দাবি জানিয়ে এলেও কেউ তাদের দাবির প্রতি ভ্রুক্ষেপ করছেন না। বেহাল এই সড়কে প্রায়ই স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা চলাচলের সময় খানা-খন্দে পড়ে তাদের জামা-কাপড় নষ্ট করছে। কাইচাঁন এবং রাজৈ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম থেকে কৃষকরা প্রতি মৌসুমে হাজার হাজার মণ ধান বিরুনীয়া বাজারসহ বিভিন্ন হাট বাজারে বিক্রি করে থাকে।
ওই কৃষিপণ্য নেওয়ার একমাত্র পথ এ সড়ক।
সড়কটি পুরো চার কিলোমিটার অংশ সবটুকুই কাঁচা। চলতি বর্ষা মৌসুমে সড়কটির এমন অবস্থা হয়েছে যে, যানবাহন তো দূরের কথা পায়ে হেঁটেই চলাচল করা অসম্ভব।
সরজমিনে স্থানীয়দের সাথে কথা হলে তারা জানান, বর্তমান স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনুর নির্বাচনী  ইশতেহার ছিলো এই রাস্তাটি পাকাকরণ। কিন্তু এখনও জনগুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটি পাকা বা কোন প্রকার সংস্কার করা হয়নি। এলাকাবাসীর প্রণের আকুতি আতি দ্রুত যেন এ রাস্তাটি পাকা করা হয়।
স্থানীয় ব্যবসায়ী মো. ইয়াসিন আরাফাত জানান, ‘আমাদের এ গ্রামের বেহাল সড়কে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হয় রোগীদের। বিশেষ করে অ্যাম্বুলেন্সে যেসব রোগী আসেন তাদের যন্ত্রণা অনেকাংশে বাড়িয়ে তোলে। অন্তঃসত্ত্বা নারীদের নিয়ে অসহায় অবস্থায় পড়তে হয় পরিবারের সদস্যদের। কারণ, জরুরি মুহূর্তে কোন অ্যাম্বুলেন্স বা সিএনজি ঢোকানো যায় না।
কংশেরকুল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তানজিনা আক্তার বলেন, ‘প্রতিদিন আমাদের এই সড়ক দিয়ে কলেজে যাতায়াত করতে হয়। আসা-যাওয়ার সময় যখনই এই পথটুকুর কথা মনে পড়ে, তখনই মনটা খারাপ হয়ে যায়। বিরক্তি আর তিক্ত অভিজ্ঞতা এখানে আমাদের। আমাদের স্থানীয় সাংসদ আমাদের এলাকায় এসে এ সড়কটি করে দিবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু আজও তা করা হয়নি। আমাদের এ এলাকার শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যান যদি সাময়িক ইটের খোয়া-বালু ফেলে সংস্কার করে আপাতত কিছুটা ভোগান্তি কমতো।
স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন আহাম্মেদ ধনু এমপি মহোদয় জানান,  আমি দায়িত্ব পাওয়ার পর ভালুকায় রেকর্ড সংখ্যক রাস্তা নির্মাণ ও উন্নয়নকাজ চলমান রয়েছে। রাস্তাটি দ্রুত সময়ের মাঝে করার পরিকল্পনা রয়েছে।
0Shares

Comment here