খেলার মাঠেজাতীয়প্রযুক্তিরাজনীতিস্বাস্থ্যপাতা

পাথরঘাটায় বেঁড়িবাধ ভেঙ্গে ১০ গ্রাম প্লাবিত, মাছের খামারসহ ইরি/আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতি

নূরুল আমিন মল্লিক বরগুনার প্রতিনিধিঃ
বরগুনার পাথরঘাটা সংলগ্ন বলেশ্বর নদীতে প্রবল জোয়ারের চাপে পদ্মার অংশের বেঁড়িবাধ ভেঙ্গে প্রায় ১০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে প্রায় কয়েক হাজার মানুষ পানি বন্দী হয়ে পড়েছে এবং ১০টি মাছের খামার পানিতে তলিয়ে মাছ ভেসে গেছে। আজ শনিবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে সরে জমিনে পাথরঘাটা উপজেলার সদর ইউনিয়নের পদ্মা গ্রামের বেড়িবাঁধে গিয়ে এমন চিত্র দেখা গেছে।
এ সময় দেখা যায়, বেড়িবাঁধের পদ্মা গ্রাম সংলগ্ন বলেশ্বর নদীর পানি আমাবস্যার কারনে ভেড়ে যাওয়ায় নদীর পাশের বেড়িবাধের প্রায় এক কিলোমিটার ভেঙে নদীতে বিলিন হয়ে গেছে। এ সময় পানি ডুকে মাছের ঘের ও বসতবাড়ি তলিয়ে গেছে। এতে পদ্মা ও রুহিতা এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়।

স্থানীয়রা জানান, বাধঁটি অনেক আগে থেকেই ঝুঁকিপুর্ণ ছিল। কিছুদিন ধরে পানি খুব বেড়ে গেছে, অমাবস্যার প্রভাব পরায় হঠাৎ ২০ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে জোয়ারের পানির চাপে বেড়িবাঁধ ভেঙে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এতে এই এলাকার কয়েকটি গ্রামের প্রায় কয়েক হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে, তাছারা অনেক মৎস্য ঘের আমন ধানের বীজতলা পানিতে তলিয়ে যায়। এই বেঁড়িবাধটি দ্রুত সংস্কার করা না হলে আমাদেরকেও বলেশ্বর নদীর জোয়ারে পানিতে ভাসিয়ে নিয়ে যাবে।
পাথরঘাটা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, সরেজমিন আছি, উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের সাথে কথা বলেছি। যেভাবে পানির চাপ বাড়ছে তাতে রাতের মধ্যেই কয়েক কিলোমিটার ভেঙ্গে যাবে। ইতম্যেই বেশকিছু বাধ ভেঙ্গ পানি ডুকছে।
এবিষয়ে পানিউন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী আলমগীর বলেন, অতিবৃস্টি, আমাবস্য প্রভাব ও লগুচপের বাতাসের কারনে হঠাৎ পানি ভেড়ে গেছে তাই এই ভাঙ্গন হয়েছে। এই এলাকার ৫টি স্পটে ভেঙ্গে গেছে আমি সরেজমিনে আছি। এখানে কিছু পয়েন্টে বেড়িবাঁধ সংস্কারের কাজ চলছিল। যেই এলাকা বিলীন হয়ে গেছে সেখানে আজই বস্তার মধ্যে মাটি ভরে পানি ওঠা বন্ধ করার চেস্টা করছি।

0Shares

Comment here