জাতীয়ধর্মকর্মরকমারিস্বাস্থ্যপাতা

ঈদযাত্রায় সড়কে ঝরল ২৪২ প্রাণ

সোহান খান | দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের কারণে এবারের ঈদুল আযহায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে পরিবহন চলাচল করলেও দেশের বিভিন্ন স্থানে ২০১টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে ২৪২ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ৩৩১ জন।

এছাড়া এবারের ঈদে সড়ক, রেল ও নৌপথে মোট ২৩৮টি দুর্ঘটনায় ৩১৭ জন নিহত ও ৩৭০ জন আহত হয়েছে।

রোববার (৯ আগস্ট) বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির ‘ঈদযাত্রায় সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিবেদন ২০২০’ -এ এসব তথ্য তুলে ধরা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২৬ জুলাই থেকে ৭ আগস্ট পর্যন্ত ১৩ দিনে ২০১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪২ জন নিহত ও ৩৩১ জন আহত হয়েছেন। উল্লিখিত সময়ে রেলপথে চারটি দুর্ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন। একই সময়ে নৌপথে ৩৩টি ছোট-বড় বিচ্ছিন্ন দুর্ঘটনায় ৭৪ জন নিহত ও ৩৯ জন আহত এবং ১৭ জন নিখোঁজের খবর পাওয়া গেছে। বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এ বছর গণপরিহন সীমিত আকারে চালু থাকায় ঈদযাত্রায় ব্যক্তিগত পরিবহন ও ছোট যানবাহনে যাতায়াত বেড়েছে। এ কারণেই ব্যক্তিগত পরিবহনের দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বেড়েছে।

বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, মাত্র ১৫ থেকে ২০ শতাংশ যাত্রীর যাতায়াত হলেও সেই তুলনায় এবারের ঈদে সড়ক দুর্ঘটনা অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

এবারের ঈদযাত্রায় সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা হয় ৪ আগস্ট, এই দিনে ২৬টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। সবচেয়ে কম সড়ক দুর্ঘটনা সংগঠিত হয় ৮ আগস্ট, এই দিনে আটটি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। এই সময় একদিনে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় ৪ আগস্ট, এই দিনে ৩২ জন নিহত হন এবং একদিনে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন গত ৩১ জুলাই, এই দিনে ৫৫ জন আহত হন।

দুর্ঘটনার ধরণ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, মোট দুর্ঘটনার ৩২.৩৩ শতাংশ জাতীয় মহাসড়কে, ৪৯.২৫ শতাংশ আঞ্চলিক মহাসড়কে, ১৩.৪৩ শতাংশ ফিডার রোডে সংঘটিত হয়েছে। সংঘটিত মোট দুর্ঘটনার ৩.৯৮ শতাংশ ঢাকা মহানগরীতে, ০.৯৯ শতাংশ চট্টগ্রাম মহানগরীতে সংঘটিত হয়েছে।

0Shares

Comment here