জাতীয়ধর্মকর্মলাইফস্টাইল

শিমুলিয়া ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীচাপ বাড়ছে

 মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি || শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ঢাকাগামী যাত্রীচাপ বাড়ছে। কিন্তু এ নৌরুটে স্বল্প পরিসরে ১৬টির মধ্যে ৩টি রোরোসহ ৭টি ফেরি চলাচল করছে।

ফলে, লঞ্চ ও স্পিডবোটে যাত্রীচাপ বৃদ্ধিসহ, চরম দুর্ভোগে পোহাতে হচ্ছে এই রুটে চলাচলকারী যানবাহন ও পারাপারের অপেক্ষায় থাকা যাত্রীদেরকে।

এদিকে, পদ্মা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়াঘাট এলাকার ৪ নম্বর ফেরি ঘাটের এপ্রোচ সড়কসহ বেশকিছু এলাকা। শিমুলিয়ার এক ও দুই নম্বর ঘাট দিয়ে সীমিত আকারে ৭টি ফেরি চলাচল করছে।

শুক্রবার (৭ আগস্ট) সকাল পর্যন্ত প্রায় ৩ লাখ স্কয়ার ফিট এলাকা ভেঙে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক সাফায়েত আহমেদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রথম ও দ্বিতীয় দফায় শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিআইডাব্লিউটিসি ও বিআইডব্লিউটিএ’র বিভিন্ন স্থাপনাসহ বেশকিছু অস্থায়ী দোকান পাট ও একটি টিনের মসজিদ।

এর ফলে লঞ্চ ও স্পিডবোটে যাত্রীচাপ বৃদ্ধিসহ, চরম দুর্ভোগে পোহাতে হচ্ছে এই রুটে চলাচলকারী যানবাহন ও পারাপারের অপেক্ষায় থাকা যাত্রীদেরকে। শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে স্বল্প পরিসরে ১৬টির মধ্যে ৩টি রোরোসহ ৭টি ফেরি চলাচল করছে।

তিনি আরও জানান, ৩ নম্বর রোরো ফেরিঘাট বিলীন হবার মাত্র ৯ দিনের ব্যবধানে ৪ নম্বর (ভিআইপি) ফেরি ঘাটের বিস্তীর্ণ এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। এর কারণে নিজ কর্মস্থল ঢাকামুখী যাত্রীদের দুর্ভোগ বেড়েই চলেছে।

0Shares

Comment here