জাতীয়প্রযুক্তিরকমারিস্বাস্থ্যপাতা

খুলনায় ট্রিপল মার্ডার: ১৭ দিন পর অস্ত্র-গুলি উদ্ধার

 খুলনা প্রতিনিধি || খুলনা মহানগরীর খানজাহান আলী থানার মশিয়ালীতে ট্রিপল মার্ডারের ১৭ দিন পর এক আসামির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

রোববার (২ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টায় মশিয়ালীর শেখ বাড়ির কবরস্থান ও সরদার বাড়ির পেছন থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়। নগর গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এনামুল হক বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় রিমান্ডে থাকা আসামি শেখ জাফরিন হাসানের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) কানাই লাল সরকার বলেন, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধারের বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সূত্র জানায়, ট্রিপল মার্ডারের আসামি শেখ জাফরিন হাসানকে ১৮ জুলাই বিকেলে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার একটি প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে নগর গোয়েন্দা পুলিশ গ্রেপ্তার করে। সে প্রথম দফায় খানজাহান আলী থানা পুলিশের হেফাজতে ৮ দিনের রিমান্ডে ছিল। পরে মামলা নগর গোয়েন্দা পুলিশে হস্তান্তর হলে দ্বিতীয় দফায় ৫ দিনের রিমান্ড চলমান থাকা অবস্থায় সে অস্ত্রের কথা স্বীকার করে। ৩ আগস্ট  তার রিমান্ড শেষ হবে।

প্রসঙ্গত, ১৬ জুলাই রাতে খুলনার খানজাহান আলী থানার মশিয়ালী এলাকায় জাকারিয়া বাহিনীর গুলিতে মারা যান আটরা গিলাতলার মশিয়ালী এলাকার মৃত মো. বারিক শেখের ছেলে মো. নজরুল ইসলাম (৬০) ও একই এলাকার মো. ইউনুচ আলীর ছেলে গোলাম রসুল (৩০)। এ সময় গুলিবিদ্ধ হন মো. সাইফুল ইসলাম, আফসার শেখ, শামীম, রবি, খলিলুর রহমান ও মশিয়ার রহমানসহ আরও কয়েকজন। এর মধ্যে আহত সাইফুল ইসলাম ১৭ জুলাই সকালে মারা যান। অপরদিকে, বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসীর গণপিটুনীতে জাকারিয়া বাহিনীর সদস্য জিহাদ শেখ নিহত হয়।

0Shares

Comment here