খেলার মাঠেজাতীয়ধর্মকর্ম

বরগুনা তালতলিতে পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রি না করায় দোকানপাট ভেঙ্গে এলাকা ছাড়ার হুমকি।

এস এম আবুল হাসান নিজস্ব প্রতিনিধি: বরগুনার তালতলী উপজেলার ২নং ছোট্টবগী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃআলি হোসেনের পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রি না করায় দোকানপাট ভেঙ্গে এলাকা ছাড়ার হুমকি দিলেন এলাকার প্রভাবশালী সেকান্দার মুসল্লী ও তার ছেলেরা।

সুত্রে জানাযায়, সেকান্দার মুসল্লী (৬৫) দীর্ঘদিন ধরে জমি কিনবেন বলে জমি দাতাকে জমি তার কাছে বিক্রি করার কথা বলেন। জমি দাতা আলি হোসনে পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রি করবেন না বলে জানিয়ে দেয়। জমি বিক্রি না করায় জমি দাতাকে এর পূর্বে অনেকবার শারীরিক নির্যাতন করা সহ নারী নির্যাতন ও লুটপাটের মামলাসহ মোট ১১টি মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে হয়রানি করেছেন।

এনিয়ে একাধিক বার শালিশ ব্যাবস্থা হলেও শালিশদারদের কথা মানতে রাজি নন সেকান্দার মুসল্লী ও তার পরিবার। জমি বিক্রি না করলে জমি ছেড়ে যাওয়ার কথা বলেন সেকান্দার মুসল্লি। জমিতে কেউ আসলে তাকে কাপনের কাপর সাথে করে আসতে বলেন তিনি।

সরেজমিন গিয়ে জানাযায়, দীর্ঘদিন ধরে জমি দাতা আলি হোসেন তার পৈত্রিক সম্পত্তি ভোগ করে আসছেন। এবং দীর্ঘদিন ধরে সে তার জমির উপর দোকানপাট তৈরী করে ভাড়াও দেন।

কিছু দিন পূর্বে আলি হোসেন তার নিজ জমিতে আরো একটি দোকান উঠানোর জন্য গেলে তাকে বাধা দেন। পরে চলতি মাসের ১তারিখে দোকানের ভাড়াটিয়া দোকান ছেড়ে দিলে আলি হোসেন দোকানটি অন্য ভাড়াটিয়ার কাছে ভাড়া দিলে আজ বৃহস্পতিবার সকাল  সেকান্দার মুসল্লি তার লোকজন নিয়ে এসে দোকান ভাঙ্গচুর করে এবং দোকানের ঝাপ উপরে ফেলে দেয়। পরে রামদা দিয়ে কুপিয়ে দোকানঘরের অনেকটা ক্ষতি করেন।

বাজার সভাপতি,সাবেক মেম্বার হানিফ চকিদার জানান আমি একাধিক বার চেষ্টা করেও তাদেরকে দোকান ভাঙ্গা থেকে বিরত রাখতে পারিনি।

এ ব্যাপারে উক্ত ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃকালাম শিকদার জানান এ জমি ৫০ বছর ধরে জমি দাতা ভোগ করছেন। এবং এ দোকানের বয়স ১০ বছরের উপরে। জমি আলি হোসেনের ভোগ দখলে ছিল এবং এখনও আছে। এরা ক্ষমতার বলে জমি দখল করার চেস্টা করেন। এর পূর্বে আলি হোসেনকে অনেক গুলো মিথ্যা মামলা দিয়েও হয়রানি ও অর্থ দণ্ডি করেছেন। এবং এরা আরো অনেক অসামাজিক কার্যকলাপের সাথে জড়িত বলে তিনি জানান

ছোট বগী ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুজ জামান তনুর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে এদের মধ্যে বিরোধ চলছিলো, এ বিষয়ে আমি অবগত আছি তবে দোকান ঘর ভাঙ্গার ব্যাপারে এখনও আমার কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

 

0Shares

Comment here