খেলার মাঠেজাতীয়ধর্মকর্ম

কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে করোনা উপসর্গ নিয়ে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু। ৩টি বাড়ি লকডাউন।

কুমিল্লা প্রতিনিধি :কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের শুভপুর ইউনিয়নের কৈয়ারধারী গ্রামের ৫ দিন সর্দি-জ্বর নিয়ে মহিন উদ্দীন (৩০) নামে এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তির বাড়ির আশেপাশের তিনটি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

বুধবার (৮ এপ্রিল) ভোর সাড়ে ছয়টায়  উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের কৈয়ারধারী গ্রামের নিজ বাড়িতেই তার মৃত্যু হয়।
নিহত মহিন উদ্দীন (৩০) উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের কৈয়ারধারী গ্রামের মৃত. সালেহ আহম্মদের ছেলে।
খবর পেয়ে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোঃ হাসিবুর রহমান সহ চৌদ্দগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) মোঃ খায়ের উদ্দীন ভূঁইয়ার নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম মৃত ব্যক্তির বাড়িতে পৌঁছান। এসময় মৃত ব্যক্তির বাড়ির আশেপাশের ৩টি বাড়ি লকডাউন ঘোষনা করেন।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, নিহত নির্মাণ শ্রমিক মহিন গত পাঁচ দিন যাবৎ সে সর্দি, কাশি ও জ্বরে আক্রান্ত ছিলো। সর্দি-জ্বর নিয়ে তাকে গ্রামের মসজিদে নামাজ আদায়সহ দোকান পাটে ঘুরাফেরা করতে দেখা গেছে। সর্দি-জ্বর ও কাশের উপসর্গ লোকজনের কাছে গোপন রেখে সে স্থানীয় ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নেয়ার চেষ্টা করেছে। মঙ্গলবার রাত থেকে তার লুজ মোশন শুরু হয় এবং বুধবার ভোরে তার মৃত্যু হয়। সকালে স্থানীয় লোকজন স্থানীয় চেয়ারম্যানকে অবহিত করে জানালে তিনি বিষয়টি আইইসিডিআর এর হট লাইনে কল করে জানায়।
পরে বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান মজুমদার উপজেলা প্রশাসন এবং থানা পুলিশকে অবহিত করলে তাৎক্ষণিক উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরীক্ষার জন্য মৃত. ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে।
এবিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোঃ হাসিবুর রহমান জানান, সর্দি-জ্বর নিয়ে মহিন উদ্দীন নামের এক যুবকের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষার জন্য তা ঢাকায় পাঠানো হবে। সে আমাদের এখানে চিকিৎসার জন্য আসেনি বা যোগাযোগও করেনি। করোনা আক্রান্ত কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নমুনার রিপোর্ট পাওয়া গেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা জানান, আশেপাশের তিনটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এবিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) মো: খায়ের উদ্দীন ভূঁইয়া বলেন, উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় মৃত ব্যক্তির বাড়ির আশেপাশের তিনটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে বলে তিনি জানান।

0Shares

Comment here