খেলার মাঠেজাতীয়ধর্মকর্ম

শ্রীপুরে রাজনৈতিক নেতাদের চাপের মুখে বিদ্যালয়ের সভাপতির নির্বাচন স্থগিত।

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুরে তেলিহাটি ইউনিয়নে অভিভাবক ও রাজনৈতিক নেতাদের চাপে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নির্বাচন স্থগিত করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আজ (১৫ ফেব্রুয়ারি )শনিবার সকালে তেলিহাটি ইউনিয়নের ২০নং টেপিরবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, গত ১১ ডিসেম্বর সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার ও রির্টানিং অফিসার রমজান আলী বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করেন। তবেএ তফসিল বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাজল রেখার বিরুদ্ধে গোপন রাখার অভিযোগ করেছে সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা। তবে প্রধান শিক্ষক জানিয়েছেন তিনি নিয়ম মোতাবেক চিঠির মাধ্যমে সকলকে জানিয়ে নির্বাচন পরিচালনা করেছেন। নির্বাচন স্থগিত ও পুনরায় তফসিল ঘোষনার দাবিতে সরকারদলীয় নেতাকর্মীদের চাপের মুখে বাধ্য হয়ে শিক্ষা অফিসারের নিদের্শে প্রধান শিক্ষক নির্বাচন সাময়িক স্থগিত করেন।

স্থানীয় আওয়ামীলীগনেতা হায়দার আলী বলেন, তফসিল ঘোষনার পর ও কাউকে জানানো হয়নি। গোপনেবিএনপির নেকাকর্মীদের বিনা নির্বাচনে অভিভাবক সদস্য নির্বাচিত করেছে।

এসব অনিয়ম বন্ধ করে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানান তিনি।

বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সাবেক সভাপতি জয়নাল আবেদীন (পিওর) বলেন, নিয়ম অনুযায়ী আজ শনিবার টেপিরবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু কিছু সংখ্যক আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী ১১জন সদস্যকে বিএনপি’র কর্মী অপব্যাখ্যা দিয়ে প্রধান শিক্ষককে ভয়ভীতি হুমকির প্রদানের মাধ্যমে কমিটি গঠন স্থগিত করে দেয়।এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাজল রেখা বলেন, নিয়ম অনুযায়ী তফসিল হওয়ার পর নোর্টিশ বোর্ডে দেয়া হয়। পরে শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে তাদের অভিভাবকদের জানানো হয়েছে।

তবে সব গুলো পদে একক প্রার্থী থাকায় বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় তাঁরা নির্বাচিত হয়েছেন। সকল সদস্যগণ বিদ্যালয়ে উপস্থিত হলেও, স্থানীয় আওয়ামীলীগের কিছু সংখ্যক নেতাকর্মীরা স্কুলে উপস্থিত হয়ে তাদেরকে কেন দাওয়াত করিনি এ জন্য কমিটি গঠন না করার জন্য হুমকি ও ভয় ভীতি দেখায়। পরিবেশ অনুকোলে থাকলে আবার নতুন করে সভাপতি নির্বাচনের তারিখ ঘোষনা করা হবে।শ্রীপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার কামরুল হাসান বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে নির্বাচন স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

0Shares

Comment here