খেলার মাঠেধর্মকর্মলাইফস্টাইল

বাগেরহাট জেলা আ.লীগের সভাপতি ডাঃ মোজাম্মেল, সম্পাদক টুকু।

বাগেরহাট থেকে বনিব্রত মজুমদারঃ

আজ সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ দুপুর সাড়ে ১২টায় বাগেরহাট শহরের খানজাহান আলী ডিগ্রি কলেজ মাঠে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলির সদস্য পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য। উৎসাহ উদ্দিপনা মূখর উৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হয় বাগেরহাট জেলা আ.লীগ সম্মেলন।

বাগেরহাট জেলা সভাপতি পদে ডা. মোজাম্মেল হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে শেখ কামরুজ্জামান টুকু আবারো নির্বাচিত হয়েছেন।

কাউন্সিলরদের সমঝোতার ভিত্তিতে সোমবার দলের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে এ ঘোষণা দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য।

এ সময় খান হাবিবুর রহমানকে এক নম্বর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীনকে জেলা আওয়ামী লীগের এক নম্বর সদস্য এবং সদর আসনের তরুণ সংসদ সদস্য শেখ সারহান নাসের তন্ময়কে দলের ২ নম্বর সদস্য করা হয়। বাগেরহাট শহরের খানজাহান আলী ডিগ্রি কলেজ মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন। বিশেষ অতিথি ছিলেন- আওয়ামী লীগের কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, সদস্য বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, মির্জা আজম, এসএম কামাল হোসেন, আমিরুল আলম মিলন, বেগম হাবিবুন নাহার, শেখ সারহান নাসের তন্ময়।

অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নকিব নজিবুল হক নজু।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাগেরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শেখ হেলাল উদ্দীন বলেছেন, এই জেলার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সুসংগঠিত ছিল বলেই গত তিনটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এখানকার চারটি আসনেই আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরাই বিজয়ী হয়েছেন। তৃণমূলের নেতাকর্মীরাই আওয়ামী লীগের প্রাণ। বাগেরহাট আওয়ামী লীগের ঘাঁটি। তাই এই তৃণমূলের নেতাকর্মীরা ঠিক থাকলে এই আওয়ামী লীগ সরকারকে আর কোনদিন কেউ ক্ষমতা থেকে নামাতে পারবে না। আমাদের দলে কোন ভাড়া করা লোকের দরকার নেই। কোন দুর্নীতিবাজ, সন্ত্রাসী এবং সুযোগ সন্ধানীদের দলে জায়গা হবে না। দলে কোন সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, ডাকাতদের আওয়ামী লীগে প্রশ্রয় না দিতে দলের নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

0Shares

Comment here